চীনে টিকতেই পারছে না আমাজন

চীনে কোনভাবেই টিকতেই পারছে না আমাজন।চীন থেকে ব্যবসা গোটানোর ইঙ্গিত আগেই দিয়েছিল আমাজন। এবার চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত নিল প্রতিষ্ঠানটি। এখন আর দেশটিতে থাকছে না জনপ্রিয় এই ই-কমার্স সাইটটি। আগামী ১৮ জুলাই থেকে ই-কমার্স মার্কেটপ্লেসের ব্যবসা বন্ধ করছে আমাজন।

তবে সে দেশে নিজেদের অন্যান্য ব্যবসা চালিয়ে যাবে কোম্পানিটি। আমাজন ওয়েব সার্ভিস, কিন্ডল ই-বুক এবং ক্রস-বর্ডার অপারেশনের মতো ব্যবসাগুলো আগের মতোই বহাল থাকবে চীনে।


চীনে কেনও ব্যবসা গুটাবে আমাজন?


এমন সিদ্ধান্তের বিষয়ে জানা গেছে, চীনে ক্রমেই জনপ্রিয় হয়ে উঠছে স্থানীয় অনলাইন শপিং ওয়েবসাইটগুলো। আলিবাবা, জিডি.কম, পিনডুডু-এর মতো সাইটগুলোর সঙ্গে লড়াইয়ে অনেকটাই পিঁছিয়ে পড়ছে আমাজন।

পণ্য সামগ্রী কেনার ক্ষেত্রে দেশীয় সাইটেই বেশি ভরসা রাখছেন ক্রেতারা। ফলে প্রতিনিয়ত ক্ষতির মুখে পড়তে হচ্ছে প্রতিষ্ঠানটিকে।

এ কারণেই চীনে দীর্ঘ ১৫ বছরের ব্যবসায় ইতি টানতে চলেছে এই মার্কিন সংস্থা। আমাজনের পক্ষ থেকে জানানো হয়েছে, চীনে তাদের ওয়েবসাইট আমাজন.সিএন নামে রয়েছে। বিক্রেতাদের জানিয়ে দেয়া হয়েছে, ১৮ জুলাইয়ের পর থেকে এই সাইট থেকে আর কোনো পরিষেবা পাওয়া যাবে না।

ভারতে আমাজন রমরমিয়ে ব্যবসা করলেও পরিসংখ্যান থেকে জানা যায়, চীনে মুখ থুবড়ে পড়েছে তারা। ২০১৮-র জুলাইয়ে প্রকাশিত এজেন্সি ডেটা অনুযায়ী, চিনে ই-কমার্স সাইটের মোট ব্যবসার মধ্যে শুধু আলিবাবারই আধিপত্য ৫৮.২ শতাংশ।

তারপরই রয়েছে জেডি.কম। ১৬.৩ শতাংশ ব্যবসা তাদের। পিনডুডু-এর ব্যবসা ৫.২ শতাংশ। আমাজনের ব্যবসা সেখানে রীতিমতো ধুকছিল। ফলে চীনে ব্যবসা গোটানোর সিদ্ধান্ত নিতে বাধ্য হলো তারা।

loading...

৭ ই মার্চ কথাটি শুনলেই মনের ভিতর জেগে উঠে একটি স্পন্দন। একটি বাজনা, একটি হুঙ্কার ও মুক্তির দমামা।মনে পড়ে যায় অসংখ্য প্রিয়জন হারানোর বেদনা ।

মানুষজন একটি দিনের ভাষণকে মনে কর... Read More