১৯ ঘণ্টা রোজা রেখে খেলেছেন তিন টাইগার

রোজা শুরুর আগেই দেশ ছাড়তে হয়েছে বাংলাদেশের ক্রিকেটারদের। বিশ্বকাপের আগে আয়ারল্যান্ডে ছিল ত্রিদেশীয় সিরিজ। ৫ মে শুরু হয়েছিল এই সিরিজটি।

 

 ৬ এবং ৭ মে থেকে শুরু হয়েছে পবিত্র রমজান মাস। বিশ্বের কোনো দেশে ৬ মে এবং বাংলাদেশসহ বিভিন্ন দেশে রোজা শুরু হয়েছে ৭ মে থেকে। অর্থ্যাৎ আয়ারল্যান্ডে ত্রিদেশীয় সিরিজের প্রথম ম্যাচেও ছিল রোজা।

 

বাংলাদেশ দলের মধ্যে মাহমুদউল্লাহ রিয়াদ, মুশফিকুর রহীমরা ধর্মপ্রাণ মুসলিম। আয়ারল্যান্ডে ত্রিদেশীয় সিরিজ থেকে যে তারা রোজা রেখে খেলছেন, অনুশীলন করছেন এসব হয়তো অনেকেরই জানা ছিল না।

 

শুধু তাই নয়, লন্ডনের দ্য ওভালে দক্ষিণ আফ্রিকার বিপক্ষে বিশ্বকাপে নিজেদের প্রথম ম্যাচেও রোজা রেখে খেলেছেন মাহমুদউল্লাহ রিয়াদ, মুশফিকুর রহীম এবং মেহেদী হাসান মিরাজ। অসাধারণ পারফরম্যান্স করেছেন তিনজনই।

 

মুশফিক তো ১৪২ রানের জুটি গড়ে বাংলাদেশের জয়ের মূল কাজটিই করে দিয়ে গেছেন সাকিব আল হাসানের সঙ্গে। শুধু তাই নয়, ৭৮ রানের সর্বোচ্চ ইনিংসটিও খেলেছেন মুশফিক।

 

মাহমুদউল্লাহ রিয়াদ শেষ মুহূর্তে অসাধারণ ব্যাট করলেন। ৩৩ বলে করেছেন অপরাজিত ৪৬ রান। তার এই ঝড়ো ইনিংসেই বাংলাদেশের রান গিয়ে ঠেকে ৩৩০-এ। যে কারণে ২১ রানের ব্যবধানে জয় এলো। টাইট বোলিং করেছেন মেহেদী হাসান মিরাজ। ফিল্ডিংয়ে বরাবরই দুর্দান্ত তিনি।

 

দক্ষিণ আফ্রিকাকে হারানোর পর সংবাদ সম্মেলনে এসে মাশরাফি বিন মর্তুজা নিজেই জানালেন বাংলাদেশ দলের এই তিন ক্রিকেটারের রোজা রেখে খেলার কথা। শুধু তাই নয়, বিশেষ ধন্যবাদও তিনি জানিয়েছেন এই তিন ক্রিকেটারকে।

 

মুশফিক-সাকিবের ইনিংসসহ বাংলাদেশের ব্যাটিং নিয়ে মাশরাফি সংক্ষেপে বলেন, ‘মুশফিক নিয়মিতই এমন ইনিংস খেলে থাকে। সাকিব দারুণ ব্যাটিং করেছে। শুরুতে সৌম্য গতিপথ ঠিক করে দিয়েছে এবং শেষে মাহমুদউল্লাহ-মোসাদ্দেক ফিনিশিং দিয়েছে।’

loading...

৭ ই মার্চ কথাটি শুনলেই মনের ভিতর জেগে উঠে একটি স্পন্দন। একটি বাজনা, একটি হুঙ্কার ও মুক্তির দমামা।মনে পড়ে যায় অসংখ্য প্রিয়জন হারানোর বেদনা ।

মানুষজন একটি দিনের ভাষণকে মনে কর... Read More