মেসি কোনোভাবেই ম্যারাডোনার সমান হতে পারবে না

পেলে-ম্যারাডোনার শ্রেষ্ঠত্বের অবসান ঘটিয়েছেন লিওনেল মেসি- এমনটাই মেসি ভক্তদের ধারণা। আসলেই কি তাই? লিওনেল মেসির প্রতিভা এবং তার শ্রেষ্ঠত্ব নিয়ে কোনো সন্দেহ নেই। কিন্তু পেলে-ম্যারাডোনাকে কি সত্যি সত্যি তিনি তার শ্রেষ্ঠত্ব দিয়ে পেছনে ফেলতে পেরেছেন?

বিশ্বকাপ ফুটবলকে যদি মানদণ্ড ধরা হয়, তাহলে তার উত্তর হবে, ‘কোনোভাবেই না’। পেলে জিতেছেন তিনটি বিশ্বকাপ। ম্যারাডোনা একা একবার বিশ্বকাপ জিতিয়েছেন তার দেশকে।

আরেকবার তুলেছিলেন ফাইনালে। সে হিসেবে মেসির অর্জন কি? একবার শুধুমাত্র বিশ্বকাপের ফাইনালে নিজ দেশকে তোলা?

আরও পড়ুণঃআইপিএলের টাকা না পেয়ে মামলাই ঠুকে দিলেন স্টার্ক

২০০৪-২০০৫ সাল থেকে ক্যারিয়ার শুরু করা মেসির সাফল্য শুধুই ক্লাব ফুটবলে। জাতীয় দলের হয়ে এখনও পর্যন্ত কোনো শিরোপাই জিততে পারেননি তিনি। শুধুমাত্র ২০০৮ বেইজিং অলিম্পিকের ফুটবলে স্বর্ণ জিতেছিলেন অনুর্ধ্ব-২৩ দলের হয়ে। দুইবার কোপা আমেরিকার ফাইনাল খেলেও পারেননি একটি শিরোপা জিততে। একবার তো খেলেছিলেন বিশ্বকাপের ফাইনাল।

এ কারণেই আর্জেন্টিনার সাবেক মিডফিল্ডার হেক্টর এনরিকে দাবি করেছেন, লিওনেল মেসি কখনোই ম্যারাডোনার সমান হতে পারেন না। হেক্টর এনরিক আবার ছিলেন ১৯৮৬ সালে বিশ্বকাপজয়ী আর্জেন্টিনায় ম্যারাডোনার সতীর্থ।

বিশ্বকাপজয়ী এই ফুটবলার নিজের মতামতের ভিত্তিতে আর্জেন্টিনার সর্বকালের একটি সেরা একাদশ দাঁড় করাতে গিয়েই বিতর্কে জড়ান মেসি এবং ম্যারাডোনা নিয়ে। যেখানে তিনি শ্রেষ্ঠত্বের আসন দিয়েছেন ম্যারাডোনাকেই।

হেক্টর এনরিকে আটাক ফুটবোলেরিওকে দেয়া সাক্ষাৎকারে বলেন, ‘দুর্ভাগ্যজনকভাবে, জাতীয় দলে মেসি খুবই কঠিন একটি সময় পেয়েছে। আমি আশা করি, আগামী বিশ্বকাপে আমরা যা আশা করি, সেই সৌভাগ্য হয়তো তিনি পাবেন। কিন্তু, আমি বলতে চাই মেসি কখনোই ম্যারাডোনার সমান হতে পারবে না।’

loading...

৭ ই মার্চ কথাটি শুনলেই মনের ভিতর জেগে উঠে একটি স্পন্দন। একটি বাজনা, একটি হুঙ্কার ও মুক্তির দমামা।মনে পড়ে যায় অসংখ্য প্রিয়জন হারানোর বেদনা ।

মানুষজন একটি দিনের ভাষণকে মনে কর... Read More

নামাজের সময়সুচী

ফজর ভোর ০৪:৩৬ মিনিট
যোহর বেলা ১১:৫৩ মিনিট
আছর বিকেল ০৪:১১ মিনিট
মাগরীব সন্ধ্যা ০৫:৫৪ মিনিট
এশা রাত ০৭:০৯ মিনিট
সেহরী ভোর
ইফতার সন্ধ্যা

আর্কাইভ

নির্বাচিত সংবাদ