খুনের আশঙ্কায় সৌদি থেকে পালানো সেই নারী

মানবাধিকার সংস্থা হিউম্যান রাইটস ওয়াচ বলছে, ব্যাংকক বিমানবন্দরে অবস্থানরত সৌদি নারীকে দেশে ফেরত পাঠানো ঠিক হবে না। থাইল্যান্ড কর্তৃপক্ষের কাছে ওই নারীকে সৌদি ফেরত না পাঠানোর আহ্বান জানানো হয়েছে।

দেশে ফিরে গেলে তার পরিবার তাকে হত্যা করতে পারে বলে অভিযোগ করেছেন ওই নারী।

রাহাফ মোহাম্মদ আল কুনুন (১৮) নামের ওই নারীকে ব্যাংককে আটক করা হয়েছে। পরিবারের সঙ্গে কুয়েতে বেড়াতে গিয়েছিলেন তিনি। দু'দিন আগে সেখান থেকে তিনি পালিয়ে আসেন।

এরপর তিনি ব্যাংকক হয়ে অস্ট্রেলিয়ায় যাওয়ার চেষ্টা করছিলেন। কিন্তু তার আগেই ব্যাংককে তাকে আটক করা হয়।

সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে তিনি তার অসহায় অবস্থার কথা তুলে ধরেছেন। তিনি জানিয়েছেন, তার কাছে অস্ট্রেলিয়ার ভিসা আছে। কিন্তু সুবর্নভূমি বিমানবন্দরে সৌদি আরবের এক কূটনীতিক তার সঙ্গে দেখা করে তার পাসপোর্ট জব্দ করেছেন বলে দাবি করেছেন রাহাফ।

তবে সৌদি কর্মকর্তারা জানিয়েছেন, ওই নারীর কাছে তার পাসপোর্ট আছে কিন্তু তার কাছে রিটার্ন টিকেট না থাকায় তাকে আটক করা হয়েছে।

রাহাফ আল কুনান বিবিসিকে জানান, তিনি ইসলাম ধর্ম ত্যাগ করেছেন। তার আশঙ্কা তাকে সৌদি আরবে জোর করে ফেরত পাঠালে সেখানে তার পরিবার তাকে হত্যা করতে পারে।

হিউম্যান রাইটস ওয়াচের উপ-পরিচালক মাইকেল পেজ এক বিবৃতিতে বলেন, পরিবার থেকে পালিয়ে যাওয়া সৌদি নারীদের জোর করে তাদের পরিবারের কাছে ফেরত পাঠানো হলে তাদের নানা ধরনের সহিংসতার শিকার হতে হয়।

loading...

৭ ই মার্চ কথাটি শুনলেই মনের ভিতর জেগে উঠে একটি স্পন্দন। একটি বাজনা, একটি হুঙ্কার ও মুক্তির দমামা।মনে পড়ে যায় অসংখ্য প্রিয়জন হারানোর বেদনা ।

মানুষজন একটি দিনের ভাষণকে মনে কর... Read More