ধর্মঘটের প্রভাব পরেনি বাজারে

পরিবহন শ্রমিকদের ডাকা ধর্মঘটের কারণে রাজধানী ঢাকাসহ সারাদেশে গণপরিবহন ও পণ্যবাহী পরিবহন চলাচল বন্ধ থাকলেও রাজধানীর কাঁচাবাজারগুলোতে তার কোনো প্রভাব পড়েনি। বাজারগুলোতে সবজির সরবরাহ যেমন রয়েছে স্বাভাবিক তেমনি দামও অপরিবর্তিত রয়েছে।

রোববার রাজধানীর রামপুরা, মালিবাগ হাজীপাড়া, খিলগাঁও, শান্তিনগর, সেগুনবাগিচা বাজার ঘুরে ব্যবসায়ীদের সঙ্গে কথা বলে এমন তথ্য পাওয়া গেছে।

ব্যবসায়ীরা জানিয়েছেন, পরিবহন ধর্মঘট চললেও রাতে যথানিয়মেই পণ্যবোঝাই পরিবহন কারওয়ান বাজারসহ অন্যান্য আড়তে এসেছে। ফলে বাজারে সবজির সরবরাহের কোনো ঘাটতি হয়নি।

যে কারণে দামেও প্রভাব পড়েনি। তবে শ্রমিকরা যেহেতু ৪৮ ঘণ্টার ধর্মঘট ডেকেছে তাই আগামীকাল হয় তো সবজির দামে কিছুটা প্রভাব পড়তে পারে।

বিভিন্ন বাজার ঘুরে দেখা গেছে, বাজার ও মানভেদে শিম বিক্রি হচ্ছে ৭০-৮০ টাকা কেজি, গত শুক্রবারও শিমের দাম এমনই ছিল। শুক্রবার ৭০-৮০ টাকা কেজি বিক্রি হওয়া টমেটো ও গাঁজরের দামও অপরিবর্তিত রয়েছে।

তবে কিছুটা কমেছে ফুলকপির দাম। শুক্রবার ৩০-৪০ টাকা পিস বিক্রি হওয়া ফুলকপি ২০-৩০ টাকার মধ্যে বিক্রি হচ্ছে। তবে একটু বড় আকারের ফুলকপির দাম ৪০ টাকা রাখা হচ্ছে।

দাম অপরিবর্তিত রয়েছে বেগুন, উচ্ছে, বরবটি, কাকরোল, করলা, পটল, ঝিঙা, ধুন্দল, ঢেড়স, লাউয়ের দাম। বাজার ভেদে বেগুন বিক্রি হচ্ছে ৩০-৬০ টাকা কেজি। করলা ৩০-৫০ টাকা কেজি, বরবটি ৬০-৭০ টাকা কেজি। এছাড়া চিচিংগা, পটল, ঢেড়স, ঝিঙা, ধুন্দল, কাকরোল বিক্রি হচ্ছে ৩০-৫০ টাকা কেজি।

এদিকে দাম অপরিবর্তিত রয়েছে পেঁয়াজ ও কাঁচা মরিচেরও। দেশি পেঁয়াজ বাজার ভেদে বিক্রি হচ্ছে ৪০-৪৫ টাকা কেজি। কাঁচা মরিচ বিক্রি হচ্ছে ১৫-২০ টাকা পোয়া (২৫০ গ্রাম)।

বয়লার মুরগির কেজি শুক্রবারের মতোই ১৩০-১৪০ টাকা কেজি বিক্রি হচ্ছে। লাল লেয়ার মুরগি বিক্রি হচ্ছে ২২০-২৪০ টাকা কেজি। গরুর মাংস ৪৮০-৫০০ টাকা এবং খাসির মাংস ৬৫০-৭০০ টাকা কেজি দরে বিক্রি হচ্ছে।

এদিকে মাছ বাজার ঘুরে দেখা গেছে, শুক্রবারের মতোই রুই মাছ বাজার ভেদে বিক্রি হচ্ছে ২৫০-৪০০ টাকা কেজি, পাবদা মাছ ৪০০-৫০০ টাকা, শিং মাছ ৩০০-৫০০ টাকা, তেলাপিয়া ও পাঙাস ১২০-১৫০ টাকা, সরপুঁটি ১৫০-২০০ টাকা, চাষের কৈ ১৬০-১৮০ টাকা কেজি দরে বিক্রি হচ্ছে।

শান্তিনগরের ব্যবসায়ী মো. বেলায়েত বলেন, সবজির পরিবহন ঢাকায় আসে রাতে। আর পরিবহন ধর্মঘট শুরু হয়েছে সকাল থেকে। তাই রাতে সবজি আনতে কোনো সমস্য হয়নি। আড়তে পর্যাপ্ত পরিমাণে সবজি আসছে। যে কারণে দাম বাড়েনি। তবে কোনো কারণে যদি সরবরাহে সমস্য হয় তাহলে দাম বেড়ে যেতে পারে।

তিনি বলেন, পরিবহন ধর্মঘট ডাকা হয়েছে ৪৮ ঘণ্টা। সে হিসাবে আজ রাত ধর্মঘটের মধ্যে থাকবে। তাই রাতে সবজিবাহী পরিবহন ঠিকভাবে আসতে পারবে কি না সন্দেহ আছে। যদি রাতে সবজি না আসে তাহলে তো আগামীকাল অবশ্যই দাম বাড়বে।

রামপুরার ব্যবসায়ী মো. সাইফুল বলেন, সকালে কারওয়ান বাজারের আড়তে গিয়ে দেখি মালের কমতি নেই। সবকিছুই নিজের চাহিদা ও পছন্দ অনুযায়ী কিনতে পেরেছি। দামও বাড়েনি। তাই আমরাও দাম বাড়ায়নি। তবে আড়তে সবজির দাম বাড়লে আমাদেরও বাড়তি দামে বিক্রি করতে হবে।

loading...

নামাজের সময়সুচী

ফজর ভোর ০৪:৩৬ মিনিট
যোহর বেলা ১১:৫৩ মিনিট
আছর বিকেল ০৪:১১ মিনিট
মাগরীব সন্ধ্যা ০৫:৫৪ মিনিট
এশা রাত ০৭:০৯ মিনিট
সেহরী ভোর
ইফতার সন্ধ্যা

আর্কাইভ

নির্বাচিত সংবাদ