হারিয়ে যাচ্ছে ডাক বাক্স এর সাথে ডাক হরকরা!

Muzammel Chowdhury, Shayestaganj

আমাদের কাছ থেকে ধীরে ধরে হারিয়ে যাচ্ছে ডাক বাক্স ও ডাক হরকরা নামের অতি পরিচিত মানুষটি। আধুনিক প্রযুক্তির যুগান্তকারী আবিস্কার মোবাইল ফোনের মাধ্যমে ক্ষুদে বার্তা আদান-প্রদান আর ই-মেইলের যুগে এখন কেউ আর রঙিন খামে চিঠি লিখেন না।

রাষ্ট্রীয় দাপ্তরীক চিঠিপত্র ও পার্শ্বেল আদান-প্রদান ব্যতীত এখন আর পোস্ট অফিসের কদর নাই। এখন কেউ আর প্রতিক্ষার প্রহর গুণেননা ডাকপিয়ন চিঠি নিয়ে আসবে বলে। কালের বিবর্তনে মহাকালের গর্ভে হারিয়ে যাচ্ছে ডাকবাক্স ও ডাক পিয়ন।
তথ্যে জানা যায়, ডাক বাক্স বা পোস্ট বক্স হলো একটি বিভিন্ন আকৃতির বাক্স যা ডাকবিভাগ কর্তৃক চিঠিপত্র সংগ্রহের জন্য ব্যবহৃত হয়। এই ডাক বাক্সকে সর্বদা তালাবদ্ধ করে রেখে চিঠি পত্রের নিরাপত্তা নিশ্চিত করা হয়।

প্রচলিত ডাক বাক্সটি গ্রেট ব্রিটেনে পোস্টবক্স, মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র এবং কানাডাতে কালেকশন বক্স, মেইলবক্স, লেটার বাক্স, অথবা ড্রপ বক্স ইত্যাদি নামে অভিহিত করা হয়। সাধারণত ডাক বাক্স স্থাপন করা হয় জনার্কীণ বা প্রকাশ্য স্থানে। এটি আবার মাটিতে সংযুক্ত করে বা কোনও কিছুর সঙ্গে ঝুলিয়ে রাখা হয়।

সংশ্লিষ্ঠ পত্র প্রেরক এ বাক্সের ছোট ফোকট দিয়ে চিঠির খাম ভিতরে ঢুকিয়ে দেন। প্রতি দিন নির্দিষ্ট সময়ে ডাক বিভাগের লোকজন এসে ডাক বাক্সের তালা খুলে চিঠিপত্র সংগ্রহ করে ডাক অফিসে য়ে যায়।

ডাক বা পোস্ট সাধারন চিঠি বা কোন পন্য পরিবহনের মাধ্যমে নির্দিষ্ট ঠিকানায় পৌঁছে দেওয়াকে বুঝায়।
বর্তমানে সরকারি ডাক ব্যবস্থা ছাড়াও দেশে পাবলিক ডাক সেবাও রয়েছে। নিরাপত্তা ও দ্রুততার জন্য লোকজন এখন পাবলিক ডাক সেবাকে বেশি পছন্দ করেন।

যদিও পাবলিক ডাক সেবা সরকারি ডাক সেবার চেয়ে কয়েক গুণ বেশি ব্যয়বহুল। তথাপিও জনগন এটিকে সানন্দে গ্রহন করেছে। কারণ হিসেবে উল্লেখ করা যায় সরকারি ডাক বিভাগের সেবা প্রদানে উদাসীনতা ও অনাকাঙ্খিত কালক্ষেপণ। এর ফলে সরকারি ডাক সেবার উপর থেকে জনসাধারণের আস্থা ও নিভর্রতা দিনদিন হ্রাস পাচ্ছে।
সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে এবিষয়ে একটি পোস্টএ মন্তব্য করতে গিয়ে যুক্তরাজ্যের মানচেষ্টার থেকে সৈয়দ এ রহমান এবিষয়ে লিখেন, আধুনিক প্রযুক্তি ব্যবহার করে যুক্তরাজ্যের রাষ্ট্রীয় ডাক বিভাগ (পোষ্ট অফিস) এখনো জনগনকে সকল ডাক যোগাযোগ সেবা দিয়ে যাচ্ছে।

একই বিষয়ে যুক্তরাষ্ট্রের নিউজার্সি থেকে মো: আব্দুল বাসিত লিখেন, যুক্তরাষ্ট্রের জনগনের সব ধরনের পোস্টাল সার্ভিস সরকারি ডাক বিভাগই দিয়ে থাকে। জার্মানী থেকে হায়দার চৌধুরী জানালেন, জার্মান নগরীকের সরকারী বেসরকরী সকল ধরনের ডাক সেবা রাষ্ট্রীয় ডাক বিভাগই দিয়ে থাকে।
বাংলাদেশ সরকারি ডাক বিভাগকে উন্নত প্রযুক্তির সাহায্যে যুগোপযোগী করে ঢেলে সাজিয়ে এর হারানো গৌরব ফিরিয়ে আনতে কর্তৃপক্ষের উদ্যোগ নেয়া আবশ্যক।

আরও পড়ুনঃ শায়েস্তাগঞ্জে আগুনে পুড়ে ছাই বালুবাহী ট্রাক

পাশাপাশি প্রচার প্রচারণার সাহায্যে জনগনের দোরগোড়ায় পৌছেঁ দিতে হবে এর সেবার মান। সময়ের সাথে পল্লা দিয়ে সেবার মান উন্নয়নের মাধ্যমে জনসাধারণের আস্থা ও নিভর্রতা ফিরিয়ে আনতে পারলে বাংলাদেশ ডাক বিভাগের হারানো গৌরব ফিরে আসবে বলে মনে করেন সচেতন মহল।

মোজাম্মেল হায়দার, শায়েস্তাগঞ্জ (হবিগঞ্জ)