হবিগঞ্জের আজমিরীগঞ্জে দু’পক্ষের সংঘর্ষে পুলিশসহ আহত অর্ধশতাধিক

হবিগঞ্জের আজমিরীগঞ্জে দু’পক্ষের সংঘর্ষে পুলিশসহ আহত অর্ধশতাধিক

Generic placeholder image
  Ashfak

হবিগঞ্জের আজমিরীগঞ্জ উপজেলার জলসুখা ইউনিয়নের মাধবপাশা গ্রামে পুর্ব বিরোধের জের ধরে দু’পক্ষের রক্তক্ষয়ী সংঘর্ষের ঘটনা ঘটেছে। এতে নারী পুরুষ ও পুলিশসহ অর্ধশতাধিক লোকজন আহত হয়েছেন। গুরুতর আহতদের উদ্ধার করে হবিগঞ্জ সদর আধুনিক হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। সোমবার সকালে এ সংঘর্ষের ঘটনা ঘটে। খবর পেয়ে আজমিরীগঞ্জ থানা পুলিশ ঘটনাস্থলে পৌছে ১৩ রাউন্ড টিয়ারশেল নিক্ষেপ করে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রনে আনে।

স্থানীয় সূত্রে জানা যায়, মাধবপাশা গ্রামের আব্দুল হাসিম মিয়া ও একই গ্রামের লেবু হাজীর মধ্যে বিভিন্ন বিষয় নিয়ে দীর্ঘদিন যাবত বিরোধ চলে আসছিলো। রবিবার রাতে শাজাহান মিয়ার ছেলের সাথে লেবু হাজী মিয়ার এক লেকজনের কেরাম বোর্ড খেলা নিয়ে ঝামেলা হয়। পরে রাতেই স্থানীয়রা বিষয়টি নিয়ে দু’পক্ষকে সংঘর্ষে না জড়ানোর অনুরোধ করেন। সোমবার সকালে বিষয়টি নিয়ে শালিস বৈঠক হওয়ার কথা থাকলেও উভয় পক্ষ দেশীয় অস্ত্রসস্ত্র নিয়ে ফের সংঘর্ষে জড়িয়ে পড়ে।

খবর পেয়ে আজমিরীগঞ্জ থানা পুলিশ ঘটনাস্থলে গিয়ে টিয়ারশেল নিক্ষেপ করে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনে। সংঘর্ষে আহতদের মধ্যে, সোহাগ মিয়া, মুন আক্তার, রিনা আক্তার, আসমিনা আক্তার, শিহাদ মিয়া, মমিনুল ইসলাম, জুম্মত আলী, নজরুল ইসলাম, আব্দুর রহমান, ইজাজুল ইসলাম, ওয়েছ মিয়া, সালমান হোসেন, আমিনুল ইসলাম, বাহার উদ্দিন, জুয়েল মিয়া, জহিরুল ইসলামকে হবিগঞ্জ সদর আধুনিক হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। এছাড়াও অন্যদের আজমিরীগঞ্জ উপজেলা স্বাস্থ্যকমপ্লেক্সে ভর্তি করা হয়েছে।


এ বিষয়ে আজমিরীগঞ্জ থানার (ওসি) মাসুক আলী জানান- উভয় পক্ষের মধ্যে পুর্ব থেকেই বিরোধ ছিল। সংঘর্ষের খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে গিয়ে পুলিশ ১৩ রাউন্ড টিয়ারশেল নিক্ষেপ করে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রন করে। বর্তমানে পরিস্থিতি শান্ত রয়েছে। এ ঘটনায় আবিদ মিয়া ও মোবাশ্বির মিয়া নামে দুইজনকে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য আটক করা হয়েছে। ঘটনাস্থলে অতিরিক্ত পুলিশ মোতায়েন রয়েছে। এছাড়াও সংঘর্ষের সময় কয়েকজন পুলিশ সদস্য আহত হয়েছেন। তাদেরকে প্রাথমিক চিকিৎসা দেয়া হয়েছে।
হবিগঞ্জ প্রতিনিধি::

মন্তব্য করুন হিসাবে:

মন্তব্য করুন (0)