সৌদির সরকারের মানবাধিকার লঙ্ঘন,কঠোর অবস্থানে ইউরোপ

European Parliament

সৌদি আরবে অনুষ্ঠেয় আসন্ন জি-২০ সম্মেলনে অংশগ্রহণ করা থেকে বিরত থাকতে ইউরোপের দেশগুলোর প্রতি আহ্বান জানিয়েছে ইউরোপীয় পার্লামেন্ট। মানবাধিকার লঙ্ঘনের ব্যাপারে সৌদি সরকারের বাজে রেকর্ডের কারণে ইউরোপীয় পার্লামেন্ট এই আহ্বান জানায়। খবর ডয়েচে ভেলে’র।

বৃহস্পতিবার এ সংক্রান্ত একটি প্রস্তাব প্রায় সর্বসম্মতভাবে ইউরোপীয় পার্লামেন্টে পাস হয়েছে। এর ফলে ইউরোপীয় কমিশনের প্রেসিডেন্ট উরসুলা ভন ডের লিয়েন এবং ইউরোপীয় কাউন্সিলের প্রেসিডেন্ট চার্লস মাইকেল বিষয়টি নিয়ে বৈঠকে বসতে বাধ্য হবেন।

ইউরোপীয় পার্লামেন্টের ওয়েবসাইটে দেওয়া তথ্যানুসারে, সৌদি আরবে অনুষ্ঠেয় জি-২০ সম্মেলন অংশ নেওয়া থেকে বিরত থাকার জন্য পাস হওয়া প্রস্তাবের পক্ষে ভোট পড়েছে ৪১৩টি এবং বিপক্ষে ভোট পড়েছে মাত্র ৪৯টি। ভোটদানে বিরত ছিলেন ২৩৩ জন সদস্য।

যেসব কারণে সৌদি আরবের বিরুদ্ধে মানবাধিকার লঙ্ঘনের অভিযোগ আনা হচ্ছে তার প্রথম সারিতেই রয়েছে দারিদ্র্যপীড়িত ইয়েমেনের বিরুদ্ধে ২০১৫ সাল থেকে সামরিক আগ্রাসন চালানোর বিষয়টি। এ আগ্রাসনে হাজার হাজার ইয়েমেনি নিহত হয়েছেন এবং লাখ লাখ মানুষ দুর্ভিক্ষের মুখে রয়েছেন।

এছাড়া, ২০১৮ সালে তুরস্কের ইস্তাম্বুল শহরে সৌদি আরবের প্রখ্যাত সাংবাদিক জামাল খাশোগিকে হত্যার বিষয়টি ইউরোপীয় পার্লামেন্টে পাস হওয়া প্রস্তাবে উল্লেখ করা হয়েছে।

গতমাসে ইউরোপীয় পার্লামেন্ট ইয়েমেনে আগ্রাসন এবং জামাল খাশোগি হত্যার জন্য সৌদি আরবের বিরুদ্ধে অস্ত্র নিষেধাজ্ঞা আরোপের আহ্বান জানিয়েছে।

আরও পড়ুনঃ এবার ড্রোন ও হেলিকপ্টারবাহী যুদ্ধ জাহাজ উদ্বোধন করছে ইরান

বৃহস্পতিবার পাস হওয়া ওই প্রস্তাবে আরও বলা হয়েছে, সৌদি আরবে ব্যাপকভিত্তিক মৃত্যুদণ্ড কার্যকর, আলী মোহাম্মদ বাকির আল-নিমর নামে এক কিশোর অ্যাক্টিভিস্টকে কারারুদ্ধ ও মৃত্যুদণ্ড দেওয়া এবং নারী মানবাধিকার কর্মীদেরকে জেল-জুলুমের শিকার করাসহ নানাভাবে সৌদি আরব মানবাধিকার লঙ্ঘন করে চলেছে।

0 Shares
  • 0 Facebook
  • Twitter
  • LinkedIn
  • Mix
  • Email
  • Print
  • Copy Link
  • More Networks
Copy link
Powered by Social Snap