সাকিবের সঙ্গে ‘দ্বন্দ্ব’ নিয়ে মুখ খুললেন মাহমুদুল্লাহ

No rift with Shakib

বিশ্বকাপে অস্ট্রেলিয়া ম্যাচের পর সাকিব আল হাসান ও মাহমুদুল্লাহর মধ্যে সম্পর্কের অবনতি হয়েছে- এমন খবর বেশ কয়েকটি সংবাদমাধ্যমে ছড়িয়েছিল।

এরপর সাকিবকে সংবাদমাধ্যম সামনে পেলেও এ প্রসঙ্গে কোনো কিছু বলেনি মাহমুদুল্লাহ।

টেস্টের সহঅধিনায়ক মাহমুদুল্লাহ বিশ্বকাপের পর থেকেই সংবাদমাধ্যমকে এড়িয়ে চলায় এ ব্যাপারে তার বক্তব্য জানা যায়নি। গতকাল সবার সামনে এসে জানালেন সাকিবের সঙ্গে তার কিছুই হয়নি।

পরবর্তী সিরিজের জন্য ৩৫ জনের প্রাথমিক দল দিয়েছে বিসিবি। আপাতত ফিটনেসেই মনোযোগী দলের মুখপাত্র হয়ে মাহমুদুল্লাহকেই আসতে হলো। নতুন কোচ ও পরবর্তী সিরিজ নিয়ে কথা বলার ফাঁকেই উঠে এলো অপ্রীতিকর সেই প্রসঙ্গ।

সাকিবের সঙ্গে কী হয়েছিল তার? মাহমুদুল্লাহ প্রথমেই বলেছেন, ‘যা বলা হয়েছে তা সত্য নয়, আমার মনে হয়, এ ধরনের বিষয় নিয়ে কথা না বলাই ভালো। এ ব্যাপারে কোনো মন্তব্য করতে চাচ্ছি না।

শুধু একটা কথাই বলতে চাই, যেভাবে মিডিয়ায় ব্যাপারগুলো উপস্থাপন করা হয়েছে, তেমন কিছু হয়নি। উপস্থাপন ভিন্নভাবে হতে পারত। এটুকুই বলতে চাই।’

বিশ্বকাপ কাটানোর পর শ্রীলঙ্কা সিরিজে বড় দায়িত্ব ছিল মাহমুদুল্লাহর ওপর। সাকিব ও মাশরাফির অনুপস্থিতিতে দলকে ভরসা দেওয়ার দায়িত্ব ছিল বাকি তিন সিনিয়রের। মুশফিকুর রহিমই শুধু সেটা করতে পেরেছেন। তামিম ইকবাল ও মাহমুদুল্লাহ সে কাজে ব্যর্থ হয়েছেন।

৩ ম্যাচে মাত্র ১৮ রান করায় এ সময় সংবাদমাধ্যমের সামনে আসেননি মাহমুদুল্লাহ। গতকাল মিরপুরে তা স্বীকারও করেছেন মাহমুদুল্লাহ।

তবে দলের সম্প্রীতি নষ্ট হওয়ার প্রসঙ্গ ওঠায় উত্তর দিতে পিছপা হননি মাহমুদুল্লাহ, ‘আমার মনে হয় না কোনো সতীর্থের সঙ্গে গন্ড গোল আছে।

আরও পড়ুনঃ বাংলাদেশকে মনস্তাত্ত্বিক বাধা টপকাতে হবেঃ ডোমিঙ্গো

আমরা এখনো খুব ভালো বন্ধু। ড্রেসিংরুমে আপনারা (সাংবাদিকরা) চাইলে আসতে পারেন। আমরা কীভাবে কথা বলি, একজন আরেকজনের সঙ্গে কেমন মজা করি, কত ভালোভাবে সময় কাটাই। আপনাদের স্বাগত জানাচ্ছি, এসে দেখে যেতে পারেন ড্রেসিংরুম।

ছোট হোক, বড় হোক আমরা একজন একজনের সঙ্গে কতটুকু ভালোভাবে থাকি দেখুন। সব সময় চেষ্টা করি যেন সবার সঙ্গে ভালোভাবে থাকতে পারি, দলের জন্য ভালো  খেলতে পারি। সব সময় এটা বলি, আজও এটা বলি, ভবিষ্যতেও এটাই বলব- সবকিছু ঠিকভাবেই চলছে।’