শায়েস্তাগঞ্জ পৌরসভার দাউদনগর মসজিদ সংলগ্ন রাস্তাটি অত্যন্ত ঝুঁকিপূর্ণ !

Muzammel Hyde, Shayestaganj

হবিগঞ্জের শায়েস্তাগঞ্জ পৌরসভাধীন ৪ নং ওয়ার্ডের দাউদনগর মসজিদ সংলগ্ন পুকুর পাড়ের রাস্তাটির বেহাল দশা। যাত্রীবাহী টমটম সিএনজি ও মালবাহী শতাধিক গাড়ি প্রতিদিন চলাচল করে এ রাস্তা দিয়ে। বিশেষকরে নির্মাণ সামগ্রী নিয়ে ট্রাক্টরের যাতায়াত অত্যন্ত ঝুঁকিপূর্ণ।

এ এবড়ো-থেবড়ো রাস্তা দিয়ে যাত্রীবাহী টমটম ও সিএনজি চলাচলে যেকোনো সময় দুর্ঘটনা ঘটতে পারে। দুর্ঘটনাজনিত কারনে যাত্রীবাহী টমটম বা সিএনজি পার্শ্ববর্তী পুকুরে পড়ে গেলে প্রাণহানির আশঙ্কা করছেন এলাকাবাসী।

সরজমিনে গিয়ে দেখা যায়, দাউদ নগর বাজার রেলগেইট পার হয়ে শায়েস্তাগঞ্জ-হবিগঞ্জ সড়ক থেকে শুরু হয়ে দাউদ নগর, সুদিয়াখলা গ্রাম অতিক্রম করে পুরানবাজার-হবিগঞ্জ বাইপাস সড়কে গিয়ে মিলিত হয়েছে আলোচ্য রাস্তাটি।

পৌরসভার দাউদ নগর (সাহেব বাড়ি) জামে মসজিদ সংলগ্ন পুকুরের দুইপাড় দিয়ে চলে গেছে এ রাস্তা। ওই ব্যাস্ততম রাস্তাটি পুকুরের পাড় ঘেঁষে ভেঙে গিয়ে বড়বড় গর্তের সৃষ্টি হয়েছে। রাস্তা দিয়ে গাড়ি চলাচলের সময় গর্তে পড়ে গিয়ে এমনভাবে কাত হয়, মনে হয় এখনি পুকুরে পড়েযাবে। তাই এ রাস্তাটি দ্রুত মেরামত করা প্রয়োজন। তা নাহলে আগামী বর্ষা মৌসুমে এ রাস্তার অবস্থা আরও বিপজ্জনক হবে।

সরজমিনে দেখা যায়, পৌর কর্তৃপক্ষের নির্মিত আলোচ্য রাস্তাটি পুকুরে ভেঙ্গে পড়া রোধ করতে কংক্রিটের স্ল্যাব ও ছোট পিলার দিয়ে গার্ড-ওয়াল দেয়া হয়েছে।

ওই গার্ড-ওয়ালের কংক্রিটের স্ল্যাব ও ছোট পিলারগুলোর ঢালাই পড়ে গিয়ে রড বেড় হয়ে আছে। যেকোন সময় কংক্রিটের-গার্ডার ভেঙ্গে গিয়ে রাস্তার অংশ পুকুরের পানিতে বিলীন হয়ে যাওয়ার সম্ভাবনা রয়েছে বলে মনে করেন এলাকাবাসি।

এ ব্যাপারে দাউদ নগর হাবেলীর সৈয়দ হাবিবুর রহমান পারভেজ বলেন, এটি একটি ব্যস্ততম রাস্তা, প্রায় চব্বিশ ঘন্টাই এ বিপজ্জনক রাস্তা দিয়ে লোকজন ও সিএনজি টমটম চলাচল করে।

পাশেই একটি শিশুদের স্কুল রয়েছে। ওই শিক্ষার্থীরা এ রাস্তা দিয়েই যাতায়াত করে। তাই যথাশীঘ্র এ রাস্তাটি সংস্কার করা আবশ্যক অন্যথায় জীবনহানিকর দুর্ঘটনা ঘটতে পারে।

দাউদ নগর হাবেলীর বাসিন্দা সৈয়দ আকিকুর রহমান রিমেল এ ব্যাপারে বলেন, যানবাহন চলাচলে অত্যন্ত ঝুঁকিপূর্ণ এ রাস্তাটি দ্রুত মেরামত করা প্রয়োজন। তা নাহলে যে কোন সময় দুর্ঘটনা ঘটতে পারে। দুর্ঘটনায় কোন যাত্রীবাহি গাড়ি পুকুরে পড়েগেলে প্রাণহানী ঘটতে পারে।

আরও পড়ুনঃ বঙ্গবন্ধু’র জন্মশত বার্ষিকীতে দরিদ্র মানুষের মধ্যে র‌্যাবের খাবার বিতরণ

টমটম চালক আব্দুল আলী বলেন, এ রাস্তার ভাঙ্গা অংশ দিয়ে আমরা জীবনের ঝুঁকি ও গাড়ি অকেজো হওয়ার ঝুঁকি নিয়ে চলাচল করি। বৃষ্টির দিনে এ রাস্তা দিয়ে চলা আরও বিপজ্জনক হবে।

এ বিষয়ে শায়েস্তাগঞ্জ পৌরসভার মেয়র ফরিদ আহমদ অলি বলেন, পৌরসভার ৪ নং ওয়ার্ডের দাউদনগর মসজিদ সংলগ্ন পুকুর পাড়ের রাস্তাটি সংষ্কারের বিষয় আমাদের নজরে আছে। এখন রাস্তা মেরামত করার মতো কোন ফান্ড নাই। তবে ফান্ডের ব্যবস্থা হলেই অগ্রাধিকার ভিত্তিতে এ রাস্তা মেরামতকরা হবে।

মোজাম্মেল হায়দার,শায়েস্তাগঞ্জ (হবিগঞ্জ) প্রতিনিধি