শায়েস্তাগঞ্জ পৌরসভার ডাম্পিং স্টেশন না থাকায় দূষিত হচ্ছে পরিবেশ !

Muzammel Chowdhury, Shayestaganj

হবিগঞ্জের শায়েস্তাগঞ্জে পৌরসভার দূষিত বর্জ্য যত্রতত্র ফেলা হচ্ছে, এতে নষ্ট হচ্ছে পরিবেশ। ১৯৯৮ সালে শায়েস্তাগঞ্জ পৌরসভা প্রতিষ্ঠা করা হলে ও দীর্ঘ দুই দশকেও ডাম্পিং স্টেশন পায়নি পৌরবাসী, এতে করে পৌরবাসীকে নানাবিধ দুর্ভোগ পোহাতে হচ্ছে।
সরেজমিনে ঘুরে দেখা যায় শায়েস্তাগঞ্জ পৌরসভার শায়েস্তাগঞ্জ হবিগঞ্জ সড়ক, খোয়াই নদীর বেড়িবাঁধ ও মহাসড়কের পাশে খোলা পরিবেশে ফেলা হচ্ছে পৌরসভার বর্জ্য। এতে করে একদিকে যেমন দূষিত হচ্ছে পরিবেশ তেমনি দুর্গন্ধের কারণে ছড়াচ্ছে নানা রোগবালাই।

সাধারণ মানুষ দুর্গন্ধে নাকে রুমাল দিয়ে প্রতিদিন চলাফেরা করতে হয়। অন্যদিকে এই দুষিত বজ্যের কারণে মহাসড়কের গাছগুলো মারা যাচ্ছে। এই সুযোগে রাতের আঁধারে গাছগুলো কেটে নেয়ার অভিযোগ ও পাওয়া গেছে। ডাম্পিং স্টেশন না থাকায় নিরবেই বিনষ্ট হচ্ছে পৌরসভার পরিবেশ, কিন্তু পরিবেশবাদীরাও এ ব্যাপারে রয়েছেন নীরব।

এ ব্যাপারে বাংলাদেশ পরিবেশ আন্দোলন (বাপা) হবিগঞ্জ জেলা শাখার সাধারণ সম্পাদক তোফাজ্জল সোহেল বলেন, স্বাস্থ্যকর ও বাসযোগ্য নগরায়নের জন্য গুরুত্বপূর্ণ বিষয় হচ্ছে সুষ্ঠু বর্জ্য ব্যবস্থাপনা। প্রায় দুই দশকের পুরনো শায়েস্তাগঞ্জ পৌরসভা নানা কারণে গুরুত্বপূর্ণ।

এই পৌরসভায় সুষ্ঠু বর্জ্য ব্যবস্থাপনা না থাকায় গৃহস্থালিসহ নানা ধরনের বর্জ্য পুকুর, ডুবাসহ যত্রতত্র ফেলা হচ্ছে। এতে করে একদিকে আমাদের জলাশয় ভরাট হচ্ছে অন্যদিকে বিভিন্ন রোগবালাই বাসা বাঁধছে মানবদেহে।
পরিকল্পিত সুন্দর শহরে বসবাসের জন্য জনগণ তাদের মূল্যবান ভোটের মাধ্যমে পৌরসভার জনপ্রতিনিধি নির্বাচন করেন। জন প্রতিনিধিরাও সে প্রতিশ্রুতি দিয়ে নির্বাচিত হয়েছেন। তাই জন প্রতিনিধিদের উচিত পরিবেশ-প্রতিবেশ এর দিকে নজর রেখে এবং প্রতিশ্রুতি অনুযায়ী পৌরসভায় বসবাসকারীদের জন্য সুন্দর একটি শহর গড়ে তোলা। পরিকল্পিত বর্জ্য ব্যবস্থাপনার মাধ্যমে শায়েস্তাগঞ্জ পৌরসভা একটি সুন্দর জনপদ হিসেবে গড়ে উঠতে পারে।
এ ব্যাপারে হবিগঞ্জ সড়ক ও জনপথ বিভাগের নির্বাহী প্রকৌশলী সজিব আহমেদ জানান, সড়ক বিভাগের জায়গাতে পৌরসভার বর্জ্য ফেলার কোন সুযোগ নেই, আমরা এ বিষয়ে ঊর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষকে অবহিত করব।
এ বিষয়ে শায়েস্তাগঞ্জ পৌরসভার মেয়র ফরিদ আহমেদ অলি বলেন আগামী কয়েক মাসের ভিতরেই শায়েস্তাগঞ্জ পৌরসভার ডাম্পিং স্টেশন নির্মাণের কাজ শুরু করা হবে, আশা করছি খুব শীঘ্রই এই সমস্যার সমাধান হবে।
মোজাম্মেল হায়দার চৌধুরী/শায়েস্তাগঞ্জ (হবিগঞ্জ) প্রতিনিধি