শায়েস্তাগঞ্জের অলিপুর শিল্প এলাকায় ময়লার দুর্গন্ধে হুমকিতে পরিবেশ !

Muzammel Hydar, Shayestaganj

হবিগঞ্জের শায়েস্তাগঞ্জ অলিপুর রেলগেইটের অদূরে রেলপথ ও সড়ক পথের মাঝামাঝি সরকারি জমিতে অপরিকল্পিতভাবে শিল্প বর্জ্য ফেলা হচ্ছে। দীর্ঘদিন থেকে এ অবস্থা চলে আসায় স্থানটি এখন ময়লার ভাগাড়ে পরিণত হয়েছে। দুর্গন্ধে আশপাশের বাড়ির লোকজন ও পথচারী দুর্ভোগ পোহাচ্ছেন। এর ফলে স্বাস্থ্যঝুঁকিতে পড়েছে এলাকার পরিবেশ। এতে ক্ষোভ প্রকাশ করছেন দুর্ভোগের শিকার হওয়া আশপাশের লোকজন।
সরজমিনে দেখা যায়, পিকআপ ভর্তি করে বর্জ্য এনে ফেলা হচ্ছে ওই স্থানে। আর ওই বর্য্ধ পচা দুর্গন্ধ ছড়াচ্ছে পরিবেশে। জিজ্ঞাসার জবাবে পিকআপ চালক আব্দুস ছাত্তার জানান, এসব ওলিপুর বাজারের বর্জ্য। তিনি পিকআপ ভাড়ার বিনিময় গাড়ী দিয়ে এখানে নিয়ে আসছেন। বিভিন্ন শ্রমিকরা মজুরি পেয়ে এখানে ময়লাগুলো এনে ফেলে যাচ্ছে। এ ব্যাপারে অলিপুর বাজার পরিচালনা কমিটির সভাপতি নূরুল ইসলাম সরদার বলেন, ময়লা ফেলানোর আর কোন স্থান নেই। তাই ময়লাগুলো এখানে ফেলা হচ্ছে। এলাকার বাসিন্দা কমরু মিয়া বলেন, ময়লার দুর্গন্ধে বাড়িতে অবস্থান করা কঠিন হয়ে পড়েছে।
এ ব্যাপারে বাংলাদেশ পরিবেশ আন্দোলন (বাপা) জেলা শাখার সাধারণ সম্পাদক তোফাজ্জল সোহেল বলেন, রঘুনন্দন পাহাড়টির পরিবেশ রক্ষায় বিরাট ভূমিকা পালন করছি। এ পাহাড় ও সড়কের পাশে খোলা স্থানে অপরিকল্পিতভাবে ময়লা ফেলা সঠিক হচ্ছে না। এতে পাহাড়ের প্রাকৃতিক পরিবেশের উপর বিরাট প্রভাব পড়ছে। আর এ দুর্গন্ধে পথচারী ও আশপাশের লোকজন নানা রোগে আক্রান্ত হওয়ার আশঙ্কা দেখা দিয়েছে। ময়লা ফেলার জন্য অন্যত্র ড্রাম্পিং স্টেশন করে ময়লা ফেলা হোক।
শায়েস্তাগঞ্জ রেলওয়ে জংশনের ঊর্ধ্বতন উপ-প্রকৌশলী (পথ) সাইফুল্লাহ রিয়াদ বলেন, শুনেছি রেলপথের পাশে ময়লা ফেলা হচ্ছে। এ ব্যাপারে পদক্ষেপ নিবেন শায়েস্তাগঞ্জ রেলওয়ে জংশনের ঊর্ধ্বতন উপ-প্রকৌশলী (পূর্ত) কর্মকর্তা আশিকুর রহমান। ঊর্ধ্বতন উপ-প্রকৌশলী (পূর্ত) কর্মকর্তা আশিকুর রহমান বলেন, বিষয়টি খোঁজ নিয়ে পরবর্তীতে জানানো যাবে। এর আগে সঠিক করে কিছু বলা যাচ্ছে না। তবে অভিযোগ পেলে ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

মোজাম্মেল হায়দার,শায়েস্তাগঞ্জ (হবিগঞ্জ) প্রতিনিধি