লকডাউনের মধ্যে বিতর্কে জড়িয়ে পড়েছে রোনালদো

Cristiano Ronaldo warned over secret training sessions

বিতর্কে জড়িয়ে পড়েছে ক্রিশ্চিয়ানো রোনালদো। সারাবিশ্বের সঙ্গে পর্তুগালেও চলছে লকডাউন। অথচ নিজের শহর মাদেইরাতে অনুশীলনে নেমে পড়লেন তিনি।

সেই ছবি যথারীতি ভাইরাল হয়ে যায়। রোনালদোর এই আচরণে বেজায় চটেছেন মাদেইরার স্বাস্থ্য অধিদফতরের প্রধান পেদ্রো রামোস।

স্পষ্ট জানিয়ে দিয়েছেন, যত বড়ই ফুটবলার হোন না কেন, সরকারের নির্দেশ মেনেই তাকে চলতে হবে। না হলে চরম শাস্তি প্রাপ্য। রোনালদো অবশ্য এই অপরাধের জন্য ক্ষমা চেয়ে নিয়েছেন। বলেছেন, “এই অনিচ্ছাকৃত ভুলের জন্য আমি ক্ষমাপ্রার্থী।”

এদিকে, জুভেন্টাসে অ্যারোন রামসে এক সাক্ষাৎকারে বলেছেন, “রোনালদো হল একজন ব্যতিক্রমী অ্যাথলেট।”

সংগীত শিল্পী তথা গীতিকার নিয়াল হোরানোর সঙ্গে সরাসরি ইনস্টাগ্রামে বক্তব্য রাখতে গিয়ে রামসে বলেন, “মাঠে নামার আগে যাবতীয় কাজ আগে সারবে।

অর্থাৎ জিম করা থেকে শুরু করে নানান ফিজিক্যাল ফিটনেসের পর্ব সেরে তবেই ও মাঠে নামে। এটাই হল তার রুটিন। রোনালদো কখনও রুটিনের বাইরে চলে না।”

শুধু এইটুকু বলে থেমে যাননি রামসে। তার মতে, প্রকৃত জয়ী বলতে যা বোঝায় তাই হল পর্তুগিজ স্ট্রাইকার। “সে হচ্ছে প্রকৃত বিজয়ী। প্রত্যেকটি ম্যাচ জেতাই তার লক্ষ্য থাকে।

ছোট কিংবা বড় ম্যাচ, যাই হোক না কেন। তার হৃদয়ে সবসময় লেখা থাকে জেতার মন্ত্র। তাছাড়া সর্বক্ষণ শুটিং প্র্যাকটিস চালিয়ে যায়। ফ্রি-কিক প্র্যাকটিস করাও তার অনুশীলনের অন্যতম অঙ্গ।” বলছিলেন রামসে।

আরও পড়ুনঃ এখন যৌবন তাদের, তারাই পারে দেশকে বাঁচাতেঃমাশরাফি

ফুটবল ইতিহাসে রোনালদোর নাম যে সর্বক্ষণ থাকবে তাও জানিয়ে দিয়েছেন ২৯ বছরের মিডফিল্ডার। সেই সঙ্গে তার ধারণা, চ্যাম্পিয়ন্স লিগ যদি রোনালদোর সঙ্গে তিনি জুভেন্টাসে তুলে দিতে পারেন তাহলে এর চেয়ে ভাল আর কিছু হতে পারে না।

“জুভেন্টাস একটি বড় ক্লাব। সেই ক্লাবের হয়ে খেলতে পারা আমার কাছে গর্বের। যদি রোনালদোর সঙ্গে খেলে চ্যাম্পিয়ন্স লিগ পেতে পারি তাহলে এর চেয়ে ভাল আর কিছু হতে পারে না।

আমি সবসময় চাইব, রোনালদোকে যেন গোল করার ক্ষেত্রে সাহায্য করতে পারি। চ্যাম্পিয়ন্স লিগে গত কয়েক বছর দারুণ খেলে যাচ্ছেন তিনি।”

0 Shares
  • 0 Facebook
  • Twitter
  • LinkedIn
  • Mix
  • Email
  • Print
  • Copy Link
  • More Networks
Copy link
Powered by Social Snap