রুম্পার মৃত্যু নিয়ে ধোঁয়াশা, ধর্ষণের সন্দেহ - Metronews24 রুম্পার মৃত্যু নিয়ে ধোঁয়াশা, ধর্ষণের সন্দেহ - Metronews24

রুম্পার মৃত্যু নিয়ে ধোঁয়াশা, ধর্ষণের সন্দেহ

Rubaiyat Sharmin Rumpa

রাজধানীর সিদ্ধেশ্বরী সার্কুলার রোডের আয়েশা শপিং কমপ্লেক্সের পেছন থেকে অজ্ঞাতনামা হিসেবে উদ্ধার হওয়া সেই তরুণীর পরিচয় মিলেছে।

ওই তরুণীর নাম রুবাইয়াত শারমিন রুম্পা (২১)। তিনি স্টামফোর্ড ইউনিভার্সিটির ছাত্রী ছিলেন। তার বাবা পুলিশ পরিদর্শক রোকন উদ্দিন। তাদের বাড়ী ময়মনসিংহ হলেও থাকতেন মালিবাগের শান্তিবাগে।

এদিকে, ময়মনসিংহের বাড়িতে শুক্রবার সকাল সাড়ে ১০টার দিকে তার নামাজে জানাজা অনুষ্ঠিত হয়েছে। সেখানে পারিবারিক কবরস্থানেই দাফন করা হয় তাকে।

এর আগে গত বুধবার রাতে তরুণীর লাশ উদ্ধার করে পুলিশ। গতকাল দুপুরে ঢাকা মেডিকেল কলেজ (ঢামেক) মর্গে ওই তরুণীর লাশের ময়নাতদন্ত সম্পন্ন হয়। ফরেনসিক বিভাগের চিকিৎসকদের ধারণা, মৃত্যুর আগে ওই তরুণী ধর্ষণের শিকার হন।

ঢামেকের ফরেনসিক বিভাগের প্রধান ডা. সোহেল মাহমুদ বলেন, উপর থেকে পড়েই তরুণীর মৃত্যু হয়েছে বলে প্রাথমিকভাবে নিশ্চিত হওয়া গেছে।

আরও পড়ুনঃ মাদ্রাসা ছাত্রীকে শ্লীলতাহানি দায়ে আটক ৪ বখাটে

তবে ধর্ষণের বিষয়টি নিশ্চিত হতে তার মৃতদেহ থেকে হাইভেজেনাল সপসহ ভিসেরা সংগ্রহ করা হয়েছে। তা পরীক্ষানাগারে পাঠানো হবে। সেই রিপোর্ট এলে এ বিষয়ে বিস্তারিত প্রতিবেদন দেওয়া হবে।

রমনা থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. মনিরুল ইসলাম জানান, নিহতের বাবার নাম রোকন উদ্দিন। তিনি হবিগঞ্জ জেলায় পুলিশ ইন্সপেক্টর হিসেবে কর্মরত। বিস্তারিত জানার চেষ্টা চলছে। ওই তরুণীর পরিবার মৃতদেহের ছবি দেখে শনাক্ত করে।

তিনি জানান ঘটনাস্থলের পাশে তিনটি ভবন আছে। এগুলোর যেকোনও একটা থেকে পড়ে রুম্পা মারা গেছেন। আলামত সংগ্রহ করা হয়েছে, মামলা তদন্তাধীন।

ইনজুরিগুলো পেয়েছি, সেগুলো দেখে মনে হচ্ছে উঁচু কোনও জায়গা থেকে পড়ে মৃত্যু হয়েছে। তার শরীর থেকে আলামত সংগ্রহ করে ফরেনসিকে পাঠানো হয়েছে। এ ঘটনায় পুলিশ বাদী হয়ে রমনা থানায় একটি হত্যা মামলা করেছে।