মহেশ ভাট তার বাবার মতোঃ রিয়া চক্রবর্তী

Rhea Chakraborty clarifies her relationship with Mahesh Bhatt

বলিউডের জনপ্রিয় অভিনেতা সুশান্ত সিং রাজপুতের মৃত্যুর পর একের পর এক ঘটনা সামনে আসছে। তোলপাড় চলছে বলিউডে। সুশান্তের প্রেমিকা অভিনেত্রী রিয়া চক্রবর্তীর সঙ্গে প্রযোজক মহেশ ভাটের অন্তরঙ্গতা নিয়ে আলোচনা তুঙ্গে।

তাদের বিভিন্ন ভিডিও সামনে এসেছে। এরপরই রিয়া দাবি করেছেন মহেশ ভাট তার বাবার মতো। খবর এনডিটিভির।

জানা গেছে, রিয়া সুশান্তের বাড়ি থেকে বেরিয়ে গিয়েছিলেন ৮ জুন। তারপর মহেশ ভাটের সঙ্গেই প্রথম যোগাযোগ করেন তিনি। আর এর ৬ দিন পর মৃত্যু হয় সুশান্তের।

যদিও রিয়া চক্রবর্তী দাবি করেছেন যে সুশান্ত সিং রাজপুত নাকি তাকে সেদিন বাড়ি থেকে বেরিয়ে যেতে বলেন। সুশান্তের বাড়ি থেকে বেরিয়ে যাওয়ার পর কেন মহেশ ভাটের সঙ্গে তিনি যোগাযোগ করেছেন এই নিয়ে প্রশ্ন উঠেছে।

তার সঙ্গে মহেশ ভাটের সম্পর্ক নিয়েও প্রশ্ন চিহ্ন তৈরি করেছে বিভিন্ন মহলে। যদি ও রিয়া জানিয়েছেন মহেশ ভাটকে তিনি বাবার মতো ভাবেন।

রিয়া বলছেন, ‘হ্যাঁ আমি ওনার সঙ্গে কথা বলেছিলাম সেদিন। কারণ ওনাকে আমি বাবার মত ভাবি। আমি ওনাকে ফোন করে বলেছিলাম যে আমি এগোতে পারছি না। সুশান্ত আমায় বেরিয়ে যেতে বলছে আর আমি খুব ভেঙে পড়েছি।

তখন উনি আমায় বলেছিলেন যে, বাড়ি যাও এবং নিজের বাবার বিষয়ে ভাব। নিজে শক্ত থাকো। তুমি এভাবে ভেঙে পড়তে পারো না। কিন্তু দুর্ভাগ্যবশত আমাকে ওনার গার্লফ্রেন্ড বানিয়ে দেওয়া হল। এদিকে আমার বয়সী একটি মেয়ে আছে ওনার। আমার কি কারও সঙ্গে বিষয়টি নিয়ে আলোচনা করার অধিকার ছিল না?’

আরও পড়ুনঃসুশান্ত হত্যায় নতুন মোড়,রিয়াকে মাদক সরবরাহ করত দীপেশ!

রিয়া মহেশ ভাটের ছবি জালেবিতে অভিনয় করেছেন। সেই সময় থেকেই প্রযোজকের সঙ্গে তার যোগাযোগ। তিনি বলেছেন, ‘আমি সুশান্তের বাড়ি থেকে যেদিন বেরিয়েছি সেদিনই ফোন করেছিলাম ভাট সাহেবকে।

সুশান্তের সঙ্গেও ওনার একটা সুন্দর সম্পর্ক ছিল। আমার অনেক আগে থেকেই ভাট সাবের সঙ্গে ওর পরিচয় ছিল। সুশান্ত একবার টুইট পর্যন্ত করেছিল যে মহেশ ভাটের সঙ্গে দেখা করার পর তার কেমন লেগেছিল। সুশান্তের কথাও তাহলে কেউ শুনছে না কেন?’

এমন খবরও প্রকাশ্যে এসেছিল যে মহেশ ভাট নিজে রিয়াকে বলেছিলেন সুশান্তের জীবন থেকে বেরিয়ে আসতে। যদিও রিয়া এই বিষয়টি সম্পূর্ণ অস্বীকার করেছেন।

0 Shares
  • 0 Facebook
  • Twitter
  • LinkedIn
  • Mix
  • Email
  • Print
  • Copy Link
  • More Networks
Copy link
Powered by Social Snap