মঠবাড়িয়ায় পরকীয়া প্রেমের কারণে ইমরান গাজীর আত্মহত্যা, পরিবার মানতে নারাজ

Mathbaria News,Imran

মঠবাড়িয়ায় চাঞ্চল্যকর ইলেকট্রিক মিস্ত্রি ইমরান গাজীর (২৬) মৃত্যু রহস্য উদঘাটিত হয়েছে বলে দাবি পুলিশের। পুলিশ বলছে পরকীয়া প্রেমের কারণের এক নারীকে বিয়ে করতে না পারার হতাশা ও ওই নারীর প্ররোচনায় ইমরান আত্মহত্যার পথ বেছে নিয়েছে।

তবে নিহত ইমরানের পরিবার তা মানতে নারাজ। তাদের দাবি ওই‌ নারী ও তার স্বজনরা ইমরানকে হত্যা করিয়েছে। ফাতিমা বেগম (৩৮) নামের ওই নারীকে পুলিশ গ্রেপ্তার করে বুধবার আদালতে সোপর্দ করেছে। ফাতিমা বেগম পৌর শহরের সবুজ নগর এলাকার পোষ্ট অফিসের রানার হারুন অর রশিদের স্ত্রী।
থানা সূত্রে জানাগেছে, প্রতিবেশী দুই সন্তানের জননী ওই নারীর সাথে দীর্ঘদিন ধরে ইমরান‌ গাজীর প্রেমের সম্পর্ক গড়ে ওঠে। এক পর্যায়ে ইমরান ওই নারীকে বিয়ের প্রস্তাব দেয়। কিন্তু ওই নারী এই প্রস্তাব ফিরিয়ে দেয়। এতেই অভিমানী ও আবেগী হয়ে পড়ে ইমরান। এছাড়া ঘটনার দিন‌ ওই নারীকে দেখা করার কথা বলে দেখা না করলে আত্মহত্যার হুমকি দেয়। ওই নারী দেখা না করায় তার ওপর অভিমান করে ইমরান গলায় ফাঁস লাগিয়ে আত্মহত্যা করে।
তবে নিহতের ভাই আবদুল্লাহ গাজী অভিযোগ করেন, তার ভাইকে হত্যা করা হয়েছে। ময়নাতদন্তের রিপোর্ট পেয়ে আমরা মামলা করবো।

মঠবাড়িয়া থানার ওসি মুহা. নুরুল ইসলাম বাদল জানান, মোবাইলের কল লিস্ট দেখে ওই নারীকে গ্রেপ্তার করা হয়। পরে জিজ্ঞাসাবাদে ওই নারী ইমরানের সাথে প্রেমের সম্পর্কের কথা স্বীকার করে। পরে নিহতের স্বজনদের আত্মহত্যা প্ররোচনার অভিযোগে মামলা দায়ের করতে বললে তারা মামলা করতে না আসায় ওই নারীকে ৫৪ ধারায় বুধবার আদালতে সোপর্দ করা হয়।

উল্লেখ্য, গত সোমবার দুপুরে মঠবাড়িয়া পৌর শহরের সবুজ নগর এলাকার আউয়াল শরীফ এর নির্মাণাধীন তিনতলা ভবনের একটি কক্ষের ফ্যান লাগানোর রডে গলায় ফাঁস লাগানো অবস্থায় ইমরানের লাশ উদ্ধার করে পুলিশ। ইমরান গাজী পৌর শহরের সবুজ নগর এলাকার মৃত আঃ মান্নান গাজীর ছেলে।

ইসমাইল হোসেন হাওলাদার,মঠবাড়িয়া (পিরোজপুর) প্রতিনিধি

0 Shares
  • 0 Facebook
  • Twitter
  • LinkedIn
  • Mix
  • Email
  • Print
  • Copy Link
  • More Networks
Copy link
Powered by Social Snap