ভারতীয় জাতীয় দলে খেলতে প্রস্তুত শেবাগ

Virender Sehwag jokingly offers helping hand to the Indian side

চলতি অস্ট্রেলিয়া সফরের শেষ দিকে পৌঁছে গেছে ভারতীয় ক্রিকেট দল। আর মাত্র ১ টি টেস্ট খেলেই দেশে চলে যেতে পারবে তারা। কিন্তু এই একটি ম্যাচের একাদশ সাজাতে গিয়েই পড়তে হবে বিশাল ঝামেলায়। কেননা ইনজুরির কারণে ছিটকে গেছেন অর্ধডজন খেলোয়াড়।

যার ফলে এখন দলের সহায়তায় সাহায্যের হাত বাড়াতে চাইছেন সাবেক ওপেনার ভিরেন্দর শেবাগ! ভারতের যদি একাদশ সাজাতে কষ্ট হয়, তাহলে আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে ফিরতে প্রস্তুত আছেন বলে জানিয়েছেন শেবাগ। মূলত মজা করেই এমনটা বলেছেন তিনি। তবে ইনজুরি বাস্তবতায় সম্ভব হলে এমনটাই হয়তো করতো সফরকারীরা।

শুক্রবার ব্রিসবেনের গ্যাবায় শুরু হবে অস্ট্রেলিয়া ও ভারতের মধ্যকার চলতি বোর্ডার-গাভাস্কার ট্রফির ৪র্থ ও শেষ টেস্ট ম্যাচ। সিরিজের তিন ম্যাচ শেষে বিরাজ করছে ১-১ সমতা। ফলে শেষ ম্যাচের ওপর নির্ভর করছে ট্রফির ভাগ্য। কিন্তু এ ম্যাচে অন্তত ৬ জন নিয়মিত খেলোয়াড়কে পাচ্ছে না ভারত।

ইনজুরির কারণে আগেই ছিটকে গেছেন উমেশ যাদব, লোকেশ রাহুল ও মোহাম্মদ শামিরা। সিডনিতে সিরিজের তৃতীয় টেস্ট খেলতে নেমে চোট পেয়েছেন রবীন্দ্র জাদেজা, হানুমা বিহারি ও জাসপ্রিত বুমরাহ। প্রথম তিনজন আগেই ছিটকে গেছেন সিরিজ থেকে। নতুন করে বাদ পড়েছেন জাদেজা ও বিহারি। এছাড়া বুমরাহকে পাওয়ার ব্যাপারেও আশাবাদী নয় ভারত।

সবমিলিয়ে স্কোয়াডে ৬ খেলোয়াড়কে হারিয়ে রীতিমতো হাসপাতালে পরিণত হয়েছে ভারতীয় ড্রেসিংরুম। যার ফলে এখন শেষ ম্যাচের একাদশ সাজানোটাও বড় চ্যালেঞ্জ অধিনায়ক অজিঙ্কা রাহানে ও কোচ রবি শাস্ত্রীর সামনে। মজার ছলে তাদের কাজ সহজ করার প্রস্তাবই দিয়েছেন শেবাগ।

সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম টুইটারে ভারতের ইনজুরি আক্রান্ত খেলোয়াড়দের ছবি আপলোড করে শেবাগ লিখেছেন, ‘এতজন খেলোয়াড় ইনজুরিতে। যদি একাদশ সাজানো না যায়, তাহলে আমি অস্ট্রেলিয়া যেতে রাজি আছি। কোয়ারেন্টাইনের বিষয়টা দেখা যাবে।’

শুধু সিরিজে খেলতে নেমে এ ছয়জনই নয়, ভারত পাচ্ছে না তাদের আরও দুই নিয়মিত খেলোয়াড়কে। পারিবারিক কারণে প্রথম টেস্ট খেলে দেশে ফিরে গেছেন নিয়মিত অধিনায়ক বিরাট কোহলি। আর ইনজুরির কারণে সফরেই যেতে পারেননি পেসার ইশান্ত শর্মা। শুরু থেকেই তাদের অভাববোধ করছে ভারত।

আরও পড়ুনঃ অস্ট্রেলিয়ায় হোটেলের বাথরুম পরিষ্কার করছে ভারতীয় ক্রিকেটররা

ইনজুরির মিছিলে ব্রিসবেনে ভারতের পেস অ্যাটাকের দায়িত্ব থাকবে মাত্র দুই টেস্ট খেলা মোহাম্মদ সিরাজের কাঁধে। সঙ্গী হিসেবে পাবেন সিডনিতে অভিষেক হওয়া নবদ্বীপ সাইনিকে। এছাড়া তৃতীয় পেসার হিসেবে অভিষেক হবে শার্দুল ঠাকুর বা থাঙ্গারাসুই নাটরাজনের মধ্যে যেকোনো একজনের।