বেলারুশের বিরুদ্ধে আবারও পশ্চিমা বিশ্বের নিষেধাজ্ঞা

Belarus 32 officer

বেলারুশের আরও কর্মকর্তা এবং প্রতিষ্ঠানের বিরুদ্ধে নতুন করে আবারও নিষেধাজ্ঞা দিয়েছে যুক্তরাষ্ট্র, ইউরোপীয় ইউনিয়ন, যুক্তরাজ্য ও কানাডা।

যুক্তরাষ্ট্রের পররাষ্ট্রমন্ত্রী অ্যান্টনি ব্লিংকেন এক বিবৃতিতে ‘গণতন্ত্র, মানবাধিকার, আন্তর্জাতিক নীতিমালার প্রতি চলমান হামলা এবং দেশের অভ্যন্তরে ও বাইরে’ বেলারুশের জনগণের ওপর নৃশংস নিপীড়নের জন্য বেলারুশ সরকারের উপর এই নিষেধাজ্ঞা দেওয়া হয়েছে।

যুক্তরাষ্ট্র, প্রেসিডেন্ট আলেক্সান্ডার লুকাশেঙ্কো সরকারের সমর্থক জাতীয় মালিকানাধীন কতিপয় সংস্থাসহ ৩২জন কর্মকর্তা ও প্রতিষ্ঠানকে লক্ষ্যবস্তু করেছে। লুকাশেঙ্কো’র ছেলে দ্যমিত্রিও এই নিষেধাজ্ঞার আওতায় রয়েছেন।

এছাড়াও বেলারুশ সরকারের ঋণ নেওয়ার সামর্থ্যের ওপর যুক্তরাষ্ট্র নিষেধাজ্ঞা আরোপ করেছে। লুকাশেঙ্কো ২০২০ সালের আগস্ট মাসের নির্বাচনের পর থেকে রাজনৈতিক ভাবে ভিন্ন মতাবলম্বীদের উপর দমন অভিযান চালিয়ে আসছেন। যুক্তরাষ্ট্র ও ইইউ যাকে প্রতারণা বলে উল্লেখ করেছে। প্রতিবেশী দেশ পোল্যান্ডের বিরুদ্ধে রাজনৈতিক হাতিয়ার হিসাবে অভিবাসীদের ব্যবহার করার জন্যও তাদের অভিযুক্ত করা হয়।

যুক্তরাষ্ট্রের পররাষ্ট্রমন্ত্রী অ্যান্টনি ব্লিংকেন বলেন, “আজকের পদক্ষেপ নৃশংস বেলারুশ শাসকের বিরুদ্ধে আমাদের অটল প্রত্যয় ব্যক্ত করছে, যে প্রশাসন অব্যাহতভাবে বেলারুশের জনগণকে দমন করে চলেছে, ইউরোপের শান্তি ও নিরাপত্তা বিঘ্নিত করছে এবং যারা স্বাধীনভাবে বাঁচতে চান তাদের বিরুদ্ধে অত্যাচার অব্যাহত রেখেছে।

আরও পড়ুনঃ সুচির বিরুদ্ধে বিচারের রায় ঘোষণা স্থগিত

লুকাশেঙ্কো সরকার অন্যান্য ইইউভুক্ত দেশগুলোর সঙ্গে সীমান্তে অভিবাসীদের চোরাচালান করে দুঃস্থ অভিবাসীদের ব্যবহার করার যে কৌশল নিয়েছে, এসব নিষেধাজ্ঞা তার জবাবেই নেয়া হয়েছে।

0 Shares
  • 0 Facebook
  • Twitter
  • LinkedIn
  • Mix
  • Email
  • Print
  • Copy Link
  • More Networks
Copy link
Powered by Social Snap