বিমান থেকে টেনে-হিঁচড়ে নামানো হল ১৯ ব্রিটিশ পর্যটককে

British tourist group with coronavirus patient offloaded

করোনায় আক্রান্ত হওয়ার পরও পালাতে গিয়ে ধরা পড়েছে একদল ব্রিটিশ পর্যটক। ১৯ জনের ওই দলটিতে একজন ছিলেন করোনাভাইরাসে আক্রান্ত।

জানা গেছে, তখন রবিবার সকাল, ভারতের কোচি থেকে দুবাইয়ের উদ্দেশে উড্ডয়নের জন্য প্রস্তুত এমিরেটসের ফ্লাইট নাম্বার ইকে-৫৩১। প্রায় তিন শতাধিক যাত্রীর সবাই বিমানে উঠে বসেছেন, এয়ারক্র্যাফটের দরজা বন্ধ করা হবে যেকোনও মুহূর্তে।

হঠাৎই ছুটতে ছুটতে বিমানের দরজায় এসে হাজির হলেন কেরালার স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয় ও জনপ্রশাসনের একদল কর্মকর্তা, সঙ্গে বিমানবন্দর পুলিশের লোকজন।

তাদের কাছে খবর আছে, বিমানের যাত্রীদের মধ্যে একদল ব্রিটিশ পর্যটক আছেন- যার মধ্যে অন্তত একজন নিশ্চিতভাবেই করোনাভাইরাসে আক্রান্ত বলে প্রমাণ মিলেছে।

এয়ারক্র্যাফটের ভেতর খুব সহজেই চিহ্নিত করা গেল ব্রিটিশ পর্যটকদের ১৯ জনের ওই দলটিকে- আর পুলিশি পাহারায় তাদের ‘অফলোড’ করাও হল প্রায় সঙ্গে সঙ্গেই।

যেহেতু বিমানের বাকিরাও তাদের সংস্পর্শে এসেছেন বেশ খানিকটা সময়, বিমানের ক্রু এবং বাকি ২৭০ জন যাত্রীকেও নামিয়ে এনে পরীক্ষা-নিরীক্ষার ব্যবস্থা করা হল এয়ারপোর্টেই।

আরও পড়ুনঃ করোনা প্রতিরোধে গোমূত্র পান করে হাসপাতালে রামদেব

তবে অন্য যাত্রীদের আর আটকে রাখা হয়নি, ব্রিটিশ ওই পর্যটক দলটিকে ভারতে রেখেই এমিরেটসের বিমানটি শেষ পর্যন্ত নির্ধারিত সময়ের সোয়া তিন ঘণ্টা পর দুবাইয়ের উদ্দেশে রওনা হয়ে গেছে। কিন্তু কর্তৃপক্ষের নজর এড়িয়ে করোনা ভাইরাস-আক্রান্ত একজন বিদেশি নাগরিক কীভাবে এমিরেটসের বিমানে উঠে বসতে পারলেন?

এই ব্রিটিশ পর্যটকদের দলটি ভারতে এসেছিলেন কয়েকদিন আগেই। কেরালার শৈলশহর মুন্নারের কাছে একটি হিল রিসোর্টে ছুটি কাটাচ্ছিল গোটা দলটি।

ওই বিদেশি পর্যটকদের মধ্যে একজনের মধ্যে হঠাৎ ভাইরাল ও ফ্লু-সদৃশ উপসর্গে আক্রান্ত হওয়ায় তার নমুনা করোনাভাইরাস পরীক্ষার জন্য পাঠানো হয়। নিয়ম মতে তাকে রাখা হয় কোয়ারেন্টিনেও।

নিকটবর্তী দেবীকুলামের সাব-কালেক্টর প্রেম কৃষ্ণান সংবাদমাধ্যম বিবিসি বাংলাকে জানান, ‘স্বাস্থ্য বিভাগের কর্মীরা শনিবার রাত সাড়ে দশটা পর্যন্তও ওই রিসোর্টেই অবস্থান করছিলেন। কিন্তু তখনও ওই ব্যক্তির করোনাভাইরাস টেস্টের রেজাল্ট আসেনি।’

এদিন সকালে পরীক্ষার রেজাল্ট আসতেই দেখা যায় ওই ব্যক্তি করোনাভাইরাস পজিটিভ। সঙ্গে সঙ্গে সরকারি কর্মীরা সাতসকালেই ওই রিসোর্টে ছুটে যান-কিন্তু গিয়ে দেখেন ওই ব্যক্তি সেখানে নেই! আসলে তার দলের বাকি সদস্যদের ব্রিটেনে ফিরে যাওয়ার টিকিট ছিল এদিন সকালেই।

করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হওয়ায় মাত্র একজন ব্রিটিশ নাগরিকের ভারতে থেকে যেতে হত- কিন্তু এখন তিনি প্রশাসনের চোখে ধুলো দিয়ে পালাতে গিয়ে ধরা পড়ায় ১৯ জনের পুরো দলটিকেই ভারতে আটকা পড়তে হল! সূত্র: বিবিসি বাংলা

0 Shares
  • 0 Facebook
  • Twitter
  • LinkedIn
  • Mix
  • Email
  • Print
  • Copy Link
  • More Networks
Copy link
Powered by Social Snap