বাংলাদেশকে নিয়ে বিপাকে পড়েছে ফেসবুক

facebook

বর্তমানে সোশ্যাল মিডিয়া ফেসবুকের জনপ্রিয়তা প্রতিটি দেশেই। প্রতিদিনই নতুন নতুন ফিচার নিয়ে ব্যবহারকারীদের চমকে দিচ্ছে তারা। বাংলাদেশেও ফেসবুক ব্যবহারকারীর সংখ্যা নেহাত কম নয়। কিন্তু এবার বাংলাদেশকে নিয়ে বিপাকে পড়েছে ফেসবুক।

সম্প্রতি ফেসবুক কর্তৃপক্ষ Facebook.com.bd ডোমেইন এর মালিক বাংলাদেশি প্রতিষ্ঠানের বিরুদ্ধে আইনী লড়াইয়ে নেমেছে।

Facebook.com.bd ডোমেইনটি ২০০৮ সালের ৭ ডিসেম্বর কিনে রেখেছিল A1 Software নামক একটি বাংলাদেশি প্রতিষ্ঠান, তখন হয়তো ফেসবুক নিজেও জানতো না এক সময় ফেসবুক বিশ্বব্যাপী এভাবে জনপ্রিয়তা পাবে।

এখন বিশ্বের প্রায় সব দেশের নিজস্ব ডোমেইন এক্সটেনশন বা Countries Local DNS এ ফেসবুকের ডোমেইন রয়েছে এবং ব্যবহারকারীরা যে দেশ থেকে ফেসবুক ব্রাউজ করে সে দেশের extension দিয়ে তা ওপেন হয়।

এই একই কাজটি ফেসবুক চালু করতে চেয়েছিল বাংলাদেশের জন্য। কিন্তু বিপত্তি বাধে তখন, যখন .BD (ডট বিডি) অর্থাৎ Facebook.com.bd ডোমেইন চালু করতে গিয়ে ফেসবুক দেখে এই ডোমেইনের মালিক অনেক আগে থেকেই বাংলাদেশ টেলিযোগাযোগ সংস্থার (বিটিসিএল) অধীনে থাকা বাংলাদেশি প্রতিষ্ঠান A1 software।

যদিও বাংলাদেশকে ফেসবুক এতদিন কোন পাত্তাই দিতো না, সরকারী পর্যায় থেকে চেষ্টা করেও গত কয়েক বছর ধরে ফেসবুকের কোন সাড়া পাওয়া যাচ্ছিল না। তবে এবার বাংলাদেশকে নিয়ে মাথা ঘামাতে শুরু করেছে প্রতিষ্ঠানটি।

ফেসবুক এখন বাংলাদেশের Countries Local DNS বাংলাদেশি প্রতিষ্ঠান A1 software কাছ থেকে কিনতে চাচ্ছে। কিন্তু বাংলাদেশি এই প্রতিষ্ঠানটি Facebook.com.bd ডোমেইনটি ফেসবুকের কাছে বিক্রি করার জন্য দাম নির্ধারণ করেছে ৬ মিলিয়ন ইউএস ডলার। এত দামের কথা শুনে মাথায় হাত পড়েছে ফেসবুকের।

বাংলাদেশি প্রতিষ্ঠানটির সাথে দাম নিয়ে বনিবনা না হওয়ায় বাধ্য হয়েই আইনী লড়াইয়ে নামতে হচ্ছে ফেসবুককে। ইতিমধ্যে বাংলাদেশে আইনজীবী ও নিয়োগ দিয়েছে ফেসবুক কর্তৃপক্ষ।

ফেসবুক কর্তৃপক্ষ নিযুক্ত সুপ্রিম কোর্টের আইনজীবী ব্যারিস্টার মকসেদুল ইসলাম বলেন, একটি বাংলাদেশি কোম্পানি A1 software যারা বাংলাদেশের লোকাল ডোমেইন Facebook.com.bd কিনে রেখেছে এবং তারা ফেসবুকের কাছে বিক্রি করার জন্য দাম নির্ধারণ করেছে ৬ মিলিয়ন ইউএস ডলার।

আরও পড়ুনঃ হোয়াটসঅ্যাপে কোন চ্যাট আপনার মোবাইলে বেশি জায়গা খাচ্ছে?

ব্যারিস্টার মকসেদুল বলেন, আমরা কয়েক বছর আগে এই ডোমেনটি লক্ষ্য করেছি এবং সেই ডোমেনটি বন্ধ করার জন্য তখন থেকে তাদের একাধিক আইনী বিজ্ঞপ্তি প্রেরণ করেছি।

তবে ফেসবুকের স্থানীয়ভাবে নিযুক্ত সংস্থাটি এ বিষয়ে তেমন কোন মন্তব্য করেনি।