বাঁচার জন্য রায়হানের মতো হাতজোড় করে আকুতি জানায় আকবর

The way SI Akbar was caught

সিলেটের বন্দরবাজার পুলিশ ফাঁড়ির পলাতক ইনচার্জ এসআই (বরখাস্ত) আকবর হোসেন ভূঁইয়াকে আটক করা হয়েছে। পুলিশের দাবি, সোমবার দুপুরে কানাইঘাটের সীমান্তবর্তী ডোনা এলাকা থেকে তাকে জেলা পুলিশের একটি দল আটক করে।

এদিকে, গ্রামবাসীদ্বারা আটক করার কয়েকটি ভিডিও ক্লিপ সামাজিক যোগাযোগমাধ্যম ফেসবুকে ইতোমধ্যে ভাইরাল হয়েছে। তাতে দেখা যায়-একটি পাহাড়ি ছড়ায় পাথরের উপর আকবর হোসেনকে বসিয়ে রেখে হাত-পা বাঁধেন কয়েকজন যুবক। এ সময় আকবর হোসেন হাতজোড় করে কাঁদছিলেন এবং তার হাত-পা না বাঁধার অনুনয় করছিলেন।

মারা যাওয়ার আগে যখন রায়হানকে বন্দরবাজার পুলিশ ফাড়িতে নির্যাতন করা হয়েছিল, তখনও ঠিক এরকমই আকবর ও অন্যান্য পুলিশ সদস্যের কাছে জীবনরক্ষার জন্য হাতজোড় করে আকুতি জানিয়েছিল সে।

আকবরকে বাঁধার আগে তাকে জিজ্ঞাসাবাদ করেন স্থানীয়রা। এ সময় কেঁদে কেঁদে আকবর বলছিলেন, আমি মারিনি ভাই, আমি তাকে (রায়হানকে) প্রাণের মারার জন্য মারিনি। ৪-৫ জন মিলে মেরেছি, ওইসময় ছেলেটা মরে গেছে। অসুস্থ হওয়ার পর আমি তাকে হাসপাতালে পাঠিয়েছি।

এ সময় আকবর আরও বলেন, আমি অন্য কোনো কারণে ভাগিনাই। আমি ভাগছি, আমার সাসপেনশন হয়েছে, এরেস্ট হতে পারি, এই জন্য আমাকে বলা হয়েছে যে-দুইমাসের জন্য কোথাও চলে যাও, দুই মাস পর পরিস্থিতি ঠান্ডা হলে বিষয়টা হ্যান্ডেল করা যাবে।

আরও পড়ুনঃ অবশেষে আটক বরখাস্ত এসআই আকবর

আকবরকে আটককারী যুবকরা এ সময় বাংলা ভাষার পাশাপাশি আদিবাসী ভাষায়ও কথা বলেন। এরপর রায়হানের হাত-পা বেঁধে পাহাড়ি ছড়া দিয়ে তাকে হাঁটিয়ে নিয়ে আসেন ওই যুবকরা।

এদিকে, ভিডিওর যুবকদের কথাবার্তা ও এলাকা দেখে অনেকেই সে স্থানকে ভারত এবং যুবকদের খাসিয়া আদিবাসী বলে মন্তব্য করছেন।