পরিবারের সহযোগীতা মাদকনির্ভরশীল ও মানসিক রোগীদের সুস্থতার পথকে দীর্ঘায়িত করতে পারে

Bangla Press Release of Family Education Meeting

মাদকনির্ভরশীল এবং মানসিক রোগীদের চিকিৎসা কেন্দ্রের পাশাপাশি পরিবারের ভুমিকাও অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ন। আহ্ছানিয়া মিশন নারী মাদকাসক্তি চিকিৎসা কেন্দ্রে রোগীদের পাশাপাশি রোগীদের পরিবারের সদস্যদের চিকিৎসা কার্যক্রমে কার্যকর অংশগ্রহনের জন্য কেন্দ্র থেকে পারিবারিক মনোসামাজিক শিক্ষামূলক কর্মসূচি নিয়মিত আয়োজন করা হয় ।
এরই ধারাবাহিকতায় আজ শনিবার ২৭ নভেম্বর ২০২১ ইং তারিখে আহ্ছানিয়া মিশন নারী মাদকাসক্তি চিকিৎসা ও পুনর্বাসন কেন্দ্রের আয়োজনে উক্ত কেন্দ্রে চিকিৎসা নিতে আসা রোগীদের পরিবারের সদস্যদের নিয়ে পারিবারিক সভা আয়োজন করা হয় । সভায় মনোচিকিৎসক ও এডিকশন প্রফেশনাল ডা. মোঃ আখতারুজ্জামান সেলিম বিশেষজ্ঞ আলোচক এর বক্তব্যে বলেন সাক্ষ্য ভিত্তিক চিকিৎসা ব্যবস্থায় মাদকনির্ভরশীল এবং মানসিক রোগের চিকিৎসায় পরিবারের সহযোগীতা একজন রোগীর সুস্থতার পথকে মসৃন ও দীর্ঘায়িত করতে পারে।

তিনি আরো বলেন চিকিৎসা পরবর্তীতে কেন্দ্রের সাথে সংযুক্ত থাকা, নিয়মিত কাউন্সেলিং ও মনোচিকিৎসকের কাছে নিয়মিত ফলোআপ করার বিষয়গুলোতে পরিবারকে গুরুত্ব প্রদান করতে হবে। আহ্ছানিয়া মিশন নারী মাদকাসক্তি চিকিৎসা ও পুনর্বাসন কেন্দ্র আয়োজিত এবারের সভার মূল আলোচ্য বিষয় ছিলো ‘‘মাদকনির্ভরশীল ও মানসিক রোগের চিকিৎসায় পরিবারের ভুমিকা’’। সভাটি ঢাকা আহ্ছানিয়া মিশনের স্বাস্থ্য সেক্টরের ট্রেনিং রুমে অনুষ্ঠিত হয়। সভায় ২২ জন রোগীর পরিবারের সদস্যগন অংশগ্রহন করেন । সভায় বিশেষজ্ঞ আলোচক ছিলেন মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রন অধিদপ্তরের কেন্দ্রীয় মাদকাসক্তি চিকিৎসা কেন্দ্রের সাবেক আবাসিক মনোচিকিৎসক ও এডিকশন প্রফেশনাল ডা. মোঃ আখতারুজ্জামান সেলিম। সভায় ২ টি উপস্থাপনা ছিলো, ঢাকা আহ্ছানিয়া মিশনের মাদকাসক্তি চিকিৎসা কেন্দ্রের সার্ভিস নিয়ে উপস্থাপনা করেন কেন্দ্রের সিনিয়র প্রোগ্রাম অফিসার উম্মে জান্নাত এবং ‘‘মাদকনির্ভরশীল ও মানসিক রোগের চিকিৎসায় পরিবারের ভুমিকা’’ নিয়ে উপস্থাপনা করেন সিনিয়র সাইকোলজিস্ট রাখী গাঙ্গুলী। উপস্থাপনায় চিকিৎসা পদ্ধতি, কেন্দ্রের সার্ভিস,কার্যকর ও অকার্যকর পরিবার, চিকিৎসা পরবর্তীতে ফলোআপ সার্ভিসে পরিবারের ভুমিকা নিয়ে আলোচনা করা হয়। পরবর্তীতে আলোচকগন অংশগ্রহণকারীদের বিভিন্ন প্রশ্নের উত্তর দেন। সবশেষে ঢাকা আহ্ছানিয়া মিশনের মাদকাসক্তি চিকিৎসা কেন্দ্রের প্রোগ্রাম কোর্ডিনেটর মোঃ শাহেদুল হকের বক্তব্যের মধ্যে দিয়ে সভাটি শেষ করা হয়।

সভাটি সঞ্চালনা করেন আহ্ছানিয়া মিশন নারী মাদকাসক্তি চিকিৎসা ও পুনর্বাসন কেন্দ্রের সাইকোসোশ্যাল কাউন্সেলর মমতাজ খাতুন ও কাউন্সেলর তামান্না আক্তার। উল্লেখ্য ২০১৪ সাল থেকে আহ্ছানিয়া মিশন নারী মাদকাসক্তি চিকিৎসা ও পুনর্বাসন কেন্দ্র নারীদের জন্য চিকিৎসা কার্যক্রম পরিচালনা করছে।

এই কেন্দ্রটি দেশের প্রথম লাইন্সেস প্রাপ্ত নারী মাদকাসক্তি চিকিৎসা কেন্দ্র । গত ৭ বছরে উক্ত কেন্দ্র থেকে চিকিৎসা গ্রহন করেছে ৫১৫ জন রোগী এর মাঝে, চিকিৎসা নিয়ে প্রায় ২০০ জন রোগী বর্তমানে সুস্থ ও স্বাভাবিক জীবনে আছেন।

0 Shares
  • 0 Facebook
  • Twitter
  • LinkedIn
  • Mix
  • Email
  • Print
  • Copy Link
  • More Networks
Copy link
Powered by Social Snap