নোয়াখালীতে ভূমিহীনকে আশ্রায় দেওয়ায় ভূমির মালিককে প্রাণ নাশের হুমকি

noyakhali

নোয়াখালীর কবির হাটে নুলুয়া গ্রামের ভূমির মালিক মানবিক কারনে আশ্রায় দেওয়ায় ভূমির মালিককে প্রানে হত্যাসহ হামলা ও মামলার হুমকি দেওয়ায় থানায় অভিযোগ।
সূত্রে জানা যায়, নোয়াখালীর কবির হাটে নুলুয়া গ্রামের মৃত মমতাজ মিয়ার পুত্র মোঃ হানিফ (৭০), ১৯১ নং নুলুয়া মৌজার ২০৮০ নং খতিয়ানের ২৬৩১/১৬৩, ডিপি নং- ১৭০২, খতিয়ান নং- ৮০৫৬ বাটা দাগের হাল ১৫১২২ এর ০১ এককর ২০ ডিং তফসিল ভূমি উন্নয়ন কর পরিশোধ করিয়া মালিক ও দখলকার হই। বর্ণিত ভূমিতে ভূমির মালিক মোঃ হানিফ এর ছেলে বেলাল তাহার পরিবার পরিজন নিয়া বসবাস করেন।

বিগত অনুমান ১০ বছর পূর্বে একই সাকিন ও থানার পিতা মৃত জয়নাল আবেদিনের পুত্র বাহার উদ্দিন ও পতি বাহার উদ্দিনের স্ত্রী কাউসারের বসবাস করার জায়গা না থাকার কারনে উক্ত তফসিল ভূমির মালিক হানিফকে বসবাসের জন্য কতটুকু জায়গা চাহিলে হানিফ সরল বিশ্বাসে তাহাদেরকে বসবাসের জন্য তার তফসিল ভূমির উত্তর-পশ্চিম কোনে থাকতে বলিলে তাহার ছোট ০১ টি ঘর তুলিয়া বসবাস করেন।
উক্ত তফসিল ভূমির মালিক হানিফ বলেন, বর্তমানে তার জায়গা প্রয়োজন হওয়ায় পিতা মৃত জয়নাল আবেদিনের পুত্র বাহার উদ্দিন ও পতি বাহার উদ্দিনের স্ত্রী কাউসারকে স্থানীয় লোকজন নিয়া অনেক বার আমার ভূমি হইতে তাহাদেরকে অন্যত্র চলিয়া যাওয়ার জন্য বলার পর তাহারা যাব যাব বলিয়া নানান তালবাহানা করিতে থাকে।

বর্ণিত ঘটনার তারিখ গত ০১/১১/২০১৯ ইং আনুমানিক দুপুর ২ ঘটিকায় নুলুয়া সাকিনস্থ আমি ও আমার স্ত্রী জাকিয়া খাতুন, আমার ছেলে বেলাল ও অন্যান্য স্বাক্ষীদের উপস্থিতিতে বাহার উদ্দিন গংদেরকে চলিয়া যাওয়ার জন্য বলার পর সকল তাহারা একজোট হইয়া হাতে লাঠি, সোটা নিয়ে আসিয়া আমাদেরকে অকথ্য ভাষায় গালমন্দ করতঃ তেঁড়ে এসে মারধোর করার জন্য উদ্যত্ত হইলে আমাদের চিৎকারে আস পাশের লোকজন ও স্বাক্ষীগন (আমার স্ত্রী জাকিয়া খাতুন, সাকু মিয়া, নবীর উদ্দিন বেলালসহ) অন্যান্য লোকজন আসিয়া আমাদেরকে তাহাদের (ভূমি জবর দখলকারী বাহার উদ্দিন গংদের) কবল হইতে প্রানে রক্ষা করে।

তাহারা প্রকাশ্য দিবালকে সকলের সামনে জোর হুমকি দেয় যে, তাহারা আমাদেরকে এক একে খুন জখম করিবে, আমাদের ভূমি হইতে তাহারা অন্যত্র যাইবে না, তাহার আমার ভূমি দখল করিয়া রাখিবে তাহাদের ছেলেকে জবাই করিয়া আমাদের নামে মিথ্যা মামলা করিবে, কাউসার বেগম বাদী হয়ে আমাদের নামে যে কোন ধরনের মিথ্যা মামলা দিয়া হয়রানি করিবে, বহিরাগত লোক দিয়া আমাদের হাত, পা ভাঙ্গিয়া পঙ্গু করিয়া দিবে, জীবনেও আমাদের ভূমি হইতে উঠিয়া যাইবে না বলিয়া হুমকি দিয়া থাকে। পুনরায় মারধরের চেষ্টা করিলে আমি ভূমির মালিক হানিফ ও আমার পরিবার পিরজন প্রানের ভয়ে চলিয়া আসেন।

ভূমি জবর দখলকারী বাহার উদ্দিন গংরা উগ্র স্বভাবের লোক হয়। তাহা ছাড়াও তাহারা আরো যে কোন সময় যে কোন ঘটনা করিয়া বা ঘটাইয়া আমাদের বড় ধরনের সর্বনাশ করিতে পারে। বর্তমানে আমি ও আমার পরিবারের লোকজন বর্ণিত ভূমি জবর দখলকারী বাহার উদ্দিন গংদের ভয়ে নিরাপত্তা হীনতাই ভুগিতেছেন।
এব্যপারে, ভূমির মালিক হানিফ বাদী হয়ে নোয়াখালী কবির হাট থানায় বাহার, কাউসারা বেগম, রায়হান, নজির আহাম্মদ গংদেরকে বিবাদী করে একটি অভিযোগ দায়ের করেন।

অভিযোগটি কবির হাট থানার অফিসার ইনচার্জ আমলে নিয়ে নন.জি.আর মামলা হিসাবে রুজু করার আদেশ দেন। বর্তমান মামলাটি নোয়াখালী নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট আদালতে বিচারাদীন। ভূমির মালিক মোঃ হানিফ মামনীয় আদালতের নিকট ন্যায় বিচার প্রত্যাশি।
মোঃ জাহাঙ্গীর আলম, নোয়াখালী প্রতিনিধি