নোবিপ্রবিতে রক্তাক্ত বিপ্লবে PUDS’র কাছে CUDS’র হার

PUDS

নোয়াখালী বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ে(নোবিপ্রবি) আয়োজিত জাতীয় বিতর্ক উৎসব “রক্তাক্ত বিপ্লব”র ফাইনাল ও সমাপনী অনুষ্ঠান অনুষ্ঠিত হয়েছে।

২২ মে (শনিবার) বিকেলে ফেসবুক লাইভের মাধ্যমে নোবিপ্রবি ডিবেটিং সোসাইটি কর্তৃক আয়োজিত এ বিতর্ক উৎসবের ফাইনাল পর্ব অনুষ্ঠিত হয়।
তিনদিন ব্যাপি আয়োজিত এ প্রতিযোগিতাটিতে চ্যাম্পিয়ন হওয়ার কৃতিত্ব অর্জন করে প্রিমিয়ার ইউনিভার্সিটি ডিবেটিং সোসাইটির(পিইউডিএস) বিতার্কিক দল এবং প্রথম রানার আপ হয়েছে চট্টগ্রাম ইউনিভার্সিটি ডিবেটিং সোসাইটির(সিইউডিএস) বিতার্কিক দল।

ফাইনাল পর্বের মোশন ছিলো, “এই সংসদ বিশ্বাস করে, বাংলা সাহিত্য তার আটপৌড়ে সংস্কৃতির নিগড় থেকে বের হতে না পারাটাই, তাকে বিশ্বসাহিত্যে মলিন করে রেখেছে”।

উক্ত অনুষ্ঠানের প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন নোবিপ্রবি উপাচার্য প্রফেসর ড. মোঃ দিদার উল আলম। তিনি বলেন, “নোবিপ্রবি ডিবেটিং সোসাইটির এই আয়োজন সত্যিই প্রশংসার দাবিদার। আজকের দুই বিতার্কিক দলের যুক্তি মুগ্ধ হয়ে শুনছিলাম। আজকের বিতর্কের মোশনটি বর্তমান প্রেক্ষাপটে অত্যন্ত তাৎপর্যময় ছিলো। আমি আশা রাখি আমার শিক্ষার্থীরা বিতর্কের জগতে আরো অনেক দূর এগিয়ে যাবে এবং বিশ্ববিদ্যালয়ের জন্য সুনাম বয়ে আনবে। আমি সবসময় শিক্ষার্থীদের কো-কারিকুলাম এক্টিভিটিসে তাদের পাশে আছি”।

জাতীয় বিতর্ক উৎসবের আয়োজন নিয়ে নোবিপ্রবি ডিবেটিং সোসাইটির সভাপতি সৈয়দ মুমতাহিন মান্নান সিয়াম বলেন, “বিগত ১ মাস যাবৎ প্ল্যান প্রোগ্রাম ও আমার সাংগঠনিক টিমের সদস্যদের অক্লান্ত পরিশ্রম, মডারেটর ও সাবেক সদস্যদের পরামর্শ ও দিকনির্দেশনায় আজকে আমাদের এই বিতর্ক আয়োজনের পর্দা নেমেছে। অংশগ্রহণকারী বিতার্কিক, বিচারক ও শ্রোতাদের প্রতি কৃতজ্ঞতা। আশা করি খুব শীঘ্রই আমরা নোবিপ্রবি ক্যাম্পাসেই দেশসেরা বিতার্কিক ও বিচারকদের অংশগ্রহণে অসাধারণ আরো কিছু আয়োজন উপহার দিতে পারবো।”

এ বিষয়ে সংগঠনটির সেক্রেটারি মোঃ জিসান বলেন ” ডিবেট সার্কিটে বিপ্লব এবং একটি উঠতি ক্লাব হিসেবে নোবিপ্রবি ডিবেটিং সোসাইটি একটি জাতীয় বিতর্ক প্রতিযোগিতার আয়োজন আরেকটি বিপ্লব এবং আমাদের “রক্তাক্ত বিপ্লব”। টুর্নামেন্টে সর্বোপরি আমরা যে বিষয়টির জন্য খুব গর্বিত সেটি হলো বিতার্কিকদের জন্য ভালো বিচারকার্য প্রদান । আশা করছি “রক্তাক্ত বিপ্লব” এর আয়োজন সবার মনে দাগ কেটে থাকবে একটি অনন্য সাধারণ আয়োজনের জন্য।”
নোবিপ্রবি প্রতিনিধি