ধর্ষণের পর অন্তঃসত্ত্বা,৪০ দিনের শিশুকে হত্যা করল মা

15-yr-old rape survivor arrested for killing her baby

ভারতে নিজের ৪০ দিন বয়সী শিশু সন্তানকে গলায় ফাঁস দিয়ে হত্যা করেছে মা। ঘটনার তদন্তে নেমে এক মর্মান্তিক কাহিনীর হদিশ পায় পুলিশ। সম্প্রতি এই ঘটনায় মধ্য প্রদেশের দামো জেলার ১৫ বছর বয়সী ওই নাবালিকা মাকে পুলিশ হেফজাতে নেওয়া হয়েছে।

পুলিশ হেফাজতে থাকা মেয়েটি জানিয়েছে, সে ধর্ষণের শিকার হয়ে অন্তঃসত্ত্বা হয়ে পড়ে। তারপর কার্যত বাধ্য হয়েই সন্তানের জন্ম দেয়। একপর্যায়ে অপমান ও ঘৃণার জেরেই সন্তানকে হত্যা করেছে। বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন দামো জেলার তেন্দুখেড়া থানার সাব-ডিভিশনাল অফিসার অশোক চৌরাশিয়া।

তিনি জানান, গ্রামেরই এক কিশোরের সঙ্গে সম্পর্ক তৈরি হয় ওই কিশোরীর। কিন্তু গত ফেব্রুয়ারি মাসে তার ইচ্ছার বিরুদ্ধে তাকে ধর্ষণ করে তার প্রেমিক। যার জেরে সে অন্তঃসত্ত্বা হয়ে পড়ে। পরে আগস্ট মাসে পেটে যন্ত্রণা নিয়ে ডাক্তারের কাছে যাওয়ার পর মেয়েটির পরিবারের সদস্যরা জানতে পারেন যে, সে অন্তঃসত্ত্বা।

তখনই বিষয়টি পরিবারের সদস্যদের কাছে প্রকাশ করে কিশোরী। তার প্রেমিকের বিরুদ্ধে অভিযোগ দায়ের করা হয় এবং তাকে হেফাজতে নিয়ে জুভেনাইল কারেকশনাল হোমেও পাঠানো হয়। কিন্তু শারীরিক জটিলতার কারণে কিশোরীর গর্ভপাত করানো সম্ভব হয়নি বলে জানান তিনি।

আরও পড়ুনঃ ১৯ তলা থেকে পড়েও বেঁচে গেল ৮২ বছরের বৃদ্ধা(ভিডিও)

এরপর গত অক্টোবরে সে সন্তানের জন্ম দেয়। এর কিছুদিন পরে শারীরিক অসুস্থতার কারণে শিশুটিকে হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হলে চিকিৎসকরা তাকে মৃত ঘোষণা করেন। পরে মেয়েটি পুলিশকে জানায় ধর্ষণ ও তার জেরে অপমানের কারণে সে-ই শিশুটিকে গলায় ফাঁস দিয়ে হত‌্যা করেছে। শিশুটির শরীরের ময়নাতদন্তের পর মেয়েটির বিরুদ্ধে হত‌্যার অভিযোগ আনা হয়েছে।

0 Shares
  • 0 Facebook
  • Twitter
  • LinkedIn
  • Mix
  • Email
  • Print
  • Copy Link
  • More Networks
Copy link
Powered by Social Snap