ত্বক ফর্সা করবে সরিষার তেল

Use of mustard oil in skin care

ঝাঁঝালো স্বাদের জন্য সরিষার তেল অনেকেরই পছন্দ। বিভিন্ন রকম রান্নার কাজে, ভর্তা কিংবা আচার তৈরিতে সরিষার তেল ব্যবহার অপরিহার্য । কিন্তু শুধু স্বাদের জন্য নয়, এটি আরও নানা কারণে প্রয়োজনীয়। শরীরের নানা সমস্যা দূরে রাখতে সরিষার তেল ভীষণ কার্যকরী।

আমাদের ত্বক ভালো রাখতেও এই তেল সমান উপকারী। মুখে সরিষার তেল দিয় মালিশ করলে ত্বকে অনেক উপকার মেলে। সরিষার তেল দিয়ে তৈরি ফেসপ্যাক ব্যবহার করলে মুখের দাগ দূর হবে সহজেই।

ফেসপ্যাক তৈরির পদ্ধতি

সরিষার তেলের ফেসপ্যাক তৈরির জন্য ২ চামচ সরিষার তেল, ১ চামচ বেসন, ১ চামচ দই এবং আধা চামচ লেবুর রস নিন। একটি বাটিতে সরিষার তেল, দই, বেসন এবং লেবুর রস একসঙ্গে ভালোভাবে মিশ্রিত করে ঘন পেস্ট তৈরি করুন।

এরপর মুখে লাগিয়ে মিনিট বিশেক রেখে দিন। তারপর ঠান্ডা পানি দিয়ে মুখ ধুয়ে ফেলুন। এরপর মুখে ময়েশ্চারাইজার ব্যবহার করবেন।

ট্যান দূর করে

রোদ শরীরের জন্য ভালো হলেও অতিরিক্ত রোদ নানা সমস্যার কারণ হতে পারে। রোদ থেকে বাঁচতে সানস্ক্রিন ব্যবহার করেন অনেকেই। এরপরও প্রতিদিন রোদে বের হতে হলে অনেক সময় ত্বকে ট্যান পড়ে যায়।

সরিষার তেলের ফেসপ্যাক প্রয়োগ করলে ত্বকের ট্যান কমে যায়। এই ফেসপ্যাকের একটি উপাদান হলো লেবু। আর লেবুতে ভিটামিন সি রয়েছে যা ত্বকের ট্যান দূর করতে সহায়ক।

আরও পড়ুনঃ ঠাণ্ডায় নাক বন্ধের সমস্যা দূর করার উপায়

ত্বক উজ্জ্বল করে

সরিষার তেলের ফেসপ্যাক ব্যবহার করলে ত্বকের ডার্ক স্পট কমার পাশাপাশি ত্বক উজ্জ্বল হয়। রাতে শোয়ার সময় সরিষা এবং নারিকেল তেল একসঙ্গে মিশিয়ে মুখে ব্যবহার করতে পারেন।

ফাটা ঠোঁটের জন্য

সামনেই শীতের মৌসুম। এসময় ঠোঁট ফাটার সমস্যা দেখা দেয় সবার। লিপবাম কিংবা পেট্রোলিয়াম জেলি ব্যবহার করলে ঠোঁট এক থেকে দুই ঘণ্টা নরম থাকে, কিন্তু তারপর আবার একই সমস্যা দেখা দেয়। রাতে ঘুমানোর সময় নাভিতে সরিষা তেলের কয়েক ফোঁটা দিয়ে রাখলে ঠোঁট ফাটার সমস্যা দূর হবে।