ডুমুরিয়ার এক বৃদ্ধাসহ দুই মহিলাকে বাঁশ দিয়ে পিটিয়ে জখম

খুলনা জেলা ডুমুরিয়া উপজেলার আঁঠারমাইলের মাগুরাঘোনায় ৭০ বছরের এক বৃদ্ধাসহ দুই মহিলাকে বাঁশ দিয়ে পিটিয়ে জখম করার অভিযোগ পাওয়া গেছে। এ ঘটনায় বৃদ্ধা মহিলার পুত্র বাদী হয়ে ডুমুরিয়া থানায় একটি অভিযোগ দায়ের করেছে।

প্রাপ্ত অভিযোগ সূত্রে জানা যায়, ডুমুরিয়া উপজেলার হোগলাডাঙ্গা গ্রামের মৃত নেছার আলী শেখের পুত্র আব্দুর গনি শেখ ও তার ছোট ভাই আব্দুর রাজ্জাক শেখ প্রায় ১৫ বছর আগে একই গ্রামের দবির উদ্দীন শেখের পুত্র আলাল উদ্দীন শেখের কাছ থেকে ৩ শতক জমি ক্রয় করে।

বাদীর ক্রয়কৃত জমির পাশে বসবাসকারী ১নং বিবাদী মৃত আব্দুল শেখের পুত্র নুরুল আমীন শেখ ৩ ফুট জমি জোরপূর্বক দখল করার কারণে তাকে বিষয়টি বলার পর তিনি বলেন, আমীন এনে মাপজোপের পর জমি ছেড়ে দিবেন।

তার কথা মোতাবেক আমীন এনে জমিটি মাপের পর সেই মাপে আবারও ৩ ফুট জমি পেতে গেলে বিবাদী জমি ছেড়ে দিতে অস্বীকার করে এবং পরবর্তীতে জমি দাবি করলে জেলের ভাত খাওয়ানোসহ জীবননাশের হুমকি প্রদান করে।

এমতাবস্থায় গত ১৪ মার্চ রাত আনুমানিক সাড়ে ৯টার দিকে বাদীর অনুপস্থিতিতে ১নং বিবাদী মৃত আব্দুল শেখের পুত্র নুরুল আমীন শেখ (৫০), তার ভাই রফিকুল ইসলাম (৩০) ও মঞ্জুর শেখ (৩০) বাড়িতে অনাধিকার প্রবেশ করে তার বৃদ্ধা মা শোকজান বেগম (৭০) এর সাথে কথা কাটাকাটির এক পর্যায়ে পাশে থাকা বাঁশের লাঠি দ্বারা মাথায় আঘাত করে। সাথে সাথে তিনি মাটিতে লুটিয়ে পড়লে বাদীর স্ত্রী নাজমা বেগম (৩৫) এগিয়ে এলে তাকেও পিটিয়ে জখম করা হয়।

এ ব্যাপারে বাদী আব্দুল গনি বলেন, নুরুল আমীন শেখ ৩নং হোগলাডাঙ্গা ওয়ার্ডের গ্রাম্য পুলিশ (চৌকিদার) হওয়ার কারণে তিনি ক্ষমতার দাপট দেখিয়ে এভাবে তার বৃদ্ধমা ও স্ত্রীকে পিটিয়ে জখম করেছে।

নুরুল আমীন শেখ বলেন, ঠেলাঠেলি করতে গিয়ে বৃদ্ধা মহিলা পড়ে গিয়ে মাথা ফেটে গেছে।

এম এম টিপু,খুলনা প্রতিনিধি