ডুমুরিয়ায় কৃষকদের ‌বিক্ষোভ,৮ গ্রামের কৃষক সার থেকে বঞ্চিত

Goshrabloodbank

২৪ ফেব্রুয়ারী বুধবার সকাল সাড়ে ১০টায় ডুমুরিয়ার গোলাপদহ ৬নংওয়ার্ডে সাব ডিলার অশোক রায় ওয়ার্ডে সার বিক্রি করছে না।খুলনার ডুমুরিয়া উপজেলার আটলিয়া ইউনিয়নের ৮টি  গ্রামের কৃষকরা সার না পেয়ে বিক্ষোভ করেন।

এলাকাবাসী জানায় আটলিয়া ইউনিয়ানের ৬ নং গোলাপদ, চ্যাংমারী,মুড়া বুনিয়া, সুন্দর বুনিয়া, পুটিমারী,আধার মানিক ও বয়ারশিং, কৃষকরা সার থেকে বঞ্চিত হচ্ছে।

আটলিয়া ইউনিয়ানের গোলাপদহ ওয়ার্ডের বাসিন্দা ফনি ভূষন সরদার,রমেশ চন্দ্র মন্ডল,কিরণ চন্দ্র মন্ডল, মফিজুল ইসলাম, রত্না ঢালী,শুধ্যসু সরদার সহ শত‌ শত‌ কৃষাক ইউ পি মেম্বার অশিম কুমার বিশ্বাস জানান  ৬নং ওয়াডের  অশোক কুন্ডু নামে সাব ডিলার থাকলেও সে এলাকা থেকে ‌১০ কিলোমিটার দূরে চুকনগর  বাজারে  যতিন কাশেম সড়ক রোডে ‌টুম্পা এন্টার প্রাইজ নামের দোকান করে বসে আছেন।  দুরের কারণে কৃষকদের সার ক্রয় করতে সীমাহীন দুর্ভোগ পোহাতে হচ্ছে।

সাব ডিলার অশোক রায় জানান  আটলিয়া ইউনিয়ানের ,৯টি সাব ডিলার  চুকনগর বাজারে ও কাঁঠাল তলা বাজারে ব্যাবসা ‌করে ,ওয়ার্ডে কেউ ব্যাবসা  করে‌ না। আমরা কৃষি অফিসার কে বলে বাজারে ব্যাবসা করি। কৃষি অফিসার স্যার আমার দোকানে মাঝে মধ্যে আসেন।

তার মৌলিক অনুমতি নিয়েই আমি সার ও কিট্নাশক বিক্রিয় করে আসছি।ডুমুরিয়া উপজেলার আটলিয়া ইউনিয়ানের চেয়ারম্যান এ্যড প্রতাপ কুমার রায় জানান ২০১৭ সাল থেকে আমি সাব ডিলার ‌স্হানীয় লোক কে দেওয়ার জন্য অনেক বার কৃষি অফিসার কে বলেও আজ  কোন ফল হয় নাই।এব্যাপারে ডুমুরিয়া উপজেলার কৃষি অফিসার কৃষিবিদ মোঃ মোছাদ্দেক হোসেন বলেন, এতে আমার কিছু করার নেই।

আমি ডুমুরিয়ায় আসার পুর্বে দোকান গুলি চুকনগর ও কাঁঠাল তলা  বাজারে করছেন। আমি অনেক বার মিটিং করে স্ব স্ব ওয়ার্ডে নিতে পারিনি।

খুলনা জেলা উপ-পরিচালক কৃষিবিদ মোঃ হাফিজুর রহমান বলেন তার 01716181284নং মুঠোফোনে যোগাযোগ করা হলে তিনি জানান,ডুমুরিয়া উপজেলা সার মনিটর কমিটি  অনেক শক্তিশালী

আমরা অনেক বার মিটিং করে ওয়ার্ডে নিতে পারিনি।অতি দ্রুত সাব ডিলারদের  কে নির্দেশ দেয়া হবে।

স্ব স্ব ওয়ার্ডের যাওয়ার জন্য।ডুমুরিয়া উপজেলা নির্বাহী অফিসার মোঃ আব্দুল ওয়াদুদ বলেন  মানুষের উপকারে জন্য মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ‌স্ব স্ব ওয়ার্ডের সাব ডিলার নিয়োগ দিয়াছে। অব্শ্য  ওয়ার্ডে সার বিক্রি করতে হবে।অন্যথায় আইনের আওতায় এনে লাইন্সেস বাতিল করা হবে।

আরও পড়ুনঃ ডুমুরিয়ার ভদ্রা, শালতা নদী খননের মাত্র ১৮ মাসে সমতল ভূমি

ডুমুরিয়া উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান গাজী ‌এজাজ আহম্মেদ বলেন আমরা যদি এধরনের অভিযোগ পাই। তাহা হইলে  সাথে সাথে আইন গত ব্যাবস্হা নিবো‌।ইতি মধ্যে আমি  ওয়ার্ডে সার বিক্রিয় করার জন্য উপজেলা কৃষি অফিসার কে নির্দেশ দিয়াছি।

এম,এম টিপু সুলতান,খুলনা প্রতিনিধি