টঙ্গীতে ১০ দিনের ছুটির দাবীতে বিক্ষোভ শ্রমিক-পুলিশ সংঘর্ষ ,গুলিতে অর্ধশতাধিক আহত

Hamim Garments Shangarsha

গাজীপুরের টঙ্গী মিলগেইট এলাকায় সকাল সাড়ে ১১টার দিকে হামীম গ্রুপের একটি গার্মেন্টসে শ্রমিক পুলিশ সংঘর্ষে ঘটনা ঘটেছে।

এসময় ইন্ডাস্ট্রিয়াল পুলিশের এএসপি এস আলম, থানা পুলিশ ও গোয়েন্দা পুলিশসহ ৫জন ও অর্ধশতাধিক শ্রমিক আহত হযেছে।
আহতদের টঙ্গী শহীদ আহসান উল্লাহ মাষ্টার সরকারি হাসপাতালে চিকিৎসা দেওয়া হয়েছে। জানা যায়, প্রতিদিনের মত শ্রমিকরা সোমবার সকাল ৯টার দিকে তাদের কর্মস্থলে এসে যোগদান করে। পরে মালিক পক্ষ থেকে শ্রমিকদের ৩দিনের ছুটি ঘোষণা করতেই শ্রমিকরা উত্তেজিত হয়ে গার্মেন্টস থেকে বের হয়ে ১০ দিনের ছুটির দাবীতে বিক্ষোভ করতে থাকে। বেলা সাড়ে ১২টার দিকে পুলিশ এসে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনার চেষ্টা করলে শ্রমিকদের সাথে পুলিশের সংঘর্ষ বেধে যায়। পুলিশ পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনতে শতাধিক রাউন্ড সর্ট গানের গুলি ছুড়ে এবং লাঠিচার্জ করে। এতে ১৫ জন শ্রমিক গুলিবিদ্ধ ও প্রায় ৩৬ জন আহত হয়। গুলিবিদ্ধ আহতরা শ্রমিকরা হলো, হাসান মিয়া (২৬) রাজীবুল ইসলাম (২৬) মামুন মিয়া (২৭) রবি (২১) লতিফ (১৯) ইমরান (১৯) রুবেল (২৪) রুবেল (২২), রনি (২২) এহসানুল হক (৩৫) রাজিবুল (২৬) কলি বেগম (২৪) নিজাম উদ্দিন (৩০), সমলা (২৫) ইয়াসিন (২০), হাসিনা (৪০) সাব্বির (২২), সাবিনা (২৫) রিনা বেগম (২০) সহ আরো অনেকে। এদের মধ্যে গুরতর আহত ১৩ জন শ্রমিককে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে বলে হাসপাতাল সূত্রে জানা গেছে। পোশাক শ্রমিক মো. দেলোয়ার হোসেন বলেন, ঈদের ছুটিসহ দশ দিনের ছুটি দাবি করা হয়েছিল। এরপর থেকেই কারখানা কর্তৃপক্ষ আমাদের উপর তাদেও লাঠিয়াল বাহিনী ও পুলিশ বাহিনী দিয়ে আমাদের শ্রমিকদের উপর নির্যাতন শুরু করেন। এনিয়ে শ্রমিকরা উত্তেজনা বৃদ্ধি পাওয়ার সাথে সাথে আমাদের ওপর পুলিশ এলোপাথারী গুলি করে। ঈদে দেশের বাড়িতে গিয়ে আত্বীয়-স্বজনদের সাথে বছরে একবার ঈদ করব এর চেয়ে বড় পাওয়া আমাদের কাছে কিছুই নেই। এ সময় শ্রমিককদের ইটপাটকেলের আঘাতে পুলিশের ৫ জন সদস্য আহত হয়েছে বলে পুলিশ দাবী করছে। বেলা সাড়ে ১২ টায় শ্রমিকরা ঢাকা ময়মনসিংহ মহাসড়ক অবরোধ করে রাখে সেখানেও শ্রমিকদের সরাতে পুলিশ একাধিক টিয়ারসেল নিক্ষেপ করে। এখনো থেমে থেমে শ্রমিক পুলিশ সংঘর্ষ হয়। এবিষয়ে টঙ্গী জোনের উপ-পুলিশ কমিশনার মো. ইলতুৎ মিস জানান, ঘটনার সাথে সাথে শিল্প পুলিশসহ গাজীপুর মেট্রোপলিটনের পুলিশ পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনার চেষ্টা করেন। এক ঘন্টার মধ্যেই ঢাকা ময়মনসিংহ মহাসড়ক স্বাভাবিক হয়েছে এবং পরিস্থিতি স্বাভাবিক রয়েছে।
মৃণাল চৌধুরী সৈকত,টঙ্গী (গাজীপুর) প্রতিধিনি