টঙ্গীতে কলেজ ছাত্রী সূবর্ণার রহস্যজনক আত্বহত্যা

Tongi Attahotta

টঙ্গীতে রোববার দুপুরে স্থানীয় পাইলট স্কুল এন্ড কলেজের বিজ্ঞান বিভাগের একাদশ শ্রেনীর ছাত্রী সানজিদা ইসলাম সূর্বণা (১৮) নামে এক ছাত্রী কলেজের কোচিং শেষে নিজ বাসায় ফিরে রহস্যজনক কারণে ফ্যানের সাথে গলায় ওড়না পেঁচিয়ে আত্বহত্যা করেছে। পুলিশ নিহতের লাশ উদ্ধার করে মর্গে প্রেরণ করেছে।

পুুলিশ জানায়, নিহত সানজিদা ইসলাম সূর্বণা জামালপুর জেলার ইসলামপুর থানার ধর্মকুড়া বাজারের বাসিন্দা শফিকুল ইসলামের একমাত্র মেয়ে। সে তার গার্মেন্টস কর্মী মা রিপা বেগম ও ব্যবসায়ী বাবা শফিকুলের সাথে দত্তপাড়ার হাসান লেনের জনৈক নাজিম উদ্দিনের ৮৫ নং বাসার ৬ তলায় বসবাসের সুবাধে টঙ্গীস্থ পাইলট স্কুল এন্ড কলেজের একাদশ শ্রেনীতে পড়াশোনার পাশাপাশি জয়দেবপুর চৌরাস্তায় একটি নার্সিং কলেজে পড়তো।

সম্প্রতি সূর্বণার সাথে গাছা থানার বড়বাড়ি চান্দুরার স্থায়ী বাসিন্দা বাবুল মিয়ার ছেলে গার্মেন্টস কর্মী রাশেদুলের সাথে সামাজিক ও ইসলামিক শরিয়ত মোতাবেক ভাবে বিয়ে হয়। কেন-কি কারণে সূবর্ণা আত্বহত্যা করেছে সে বিষয়ে কেউ সূ-নির্দিষ্ট কারণ জানাতে পারেনি।
এব্যাপারে সূর্বণার মা রিপা বেগম বলেন, আমার মেয়ে সকালে কলেজে গিয়ে কোচিং শেষে দুপুরে বাসায় ফিরে এ ঘটনা ঘটিয়েছে। কেন এমন করেছে তা আমার জানা নেই। আমি আমার মেয়ের লাশ নিয়ে যেতে চাই, কোন ময়না তদন্তের দরকার নেই।
এ বিষয়ে নিহত সূর্বণার বাবা শফিকুল ইসলাম জানান, আমি দুদিন যাবৎ গ্রামের বাড়িতে আছি। আমি এখন রাস্তায় আছি, আসছি। আমাদের পরিবারে বা মেয়ে জামাইয়ের সাথে কোন সমস্যা নেই। মেয়েটি কেনো এমন ঘটনা ঘটিয়েছে তা বুঝতে পারছি না।

এব্যাপারে টঙ্গী পূর্ব থানার এস আই লিটন শরীফ জানান, আত্বহত্যার কোন কারণ এখনো জানা যায়নি। লাশ উদ্ধার করে মর্গে পাঠানোর হচ্ছে। বিষয়টির তদন্ত চলছে।

মৃণাল চৌধুরী সৈকত, টঙ্গী