ক্লাব দখলকে কেন্দ্র করে টঙ্গীতে দুই পক্ষের সংঘর্ষ, আহত ১০

MrinalNews

গাজীপুর মহানগরীর টঙ্গী কেরানীরটেক এলাকায় একটি ক্লাব দখল ও স্থানীয় আধিপত্য বিস্তারকে কেন্দ্র করে দুই পক্ষের রক্তক্ষয়ী সংঘর্ষে উভয় পক্ষের ১০ জন আহত হয়েছেন।

বুধবার রাতে এ ঘটনাটি ঘটে। এ ঘটনায় এলাকায় আতঙ্ক বিরাজ করছে। আহতরা হলেন, সাদ্দাম হোসেন (২৫), আবু সাইদ (২৪), বিপ্লব (৩২), রাসেল (২০), আকাশ (২০), সিয়াম (২১), রানা (২৫) ও মনির আহম্মেদ মজুমদার (৬২), রুকি বেগম (৫০), কামাল হোসেন (৪৫)। এদের মধ্যে গুরুতর আহত সাদ্দাম, রানা ও বিপ্লবকে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে প্রেরন করা হয়েছে।

এলাকাবাসী জানায়, ২০০৪ সালে একদল বিপদগামী সন্ত্রাসীদের গুলিতে শহীদ হন জনপ্রিয় সাংসদ আহসান উল্লাহ মাস্টার। সেই হত্যা মামলার প্রধান স্বাক্ষী ছিলেন সুমন আহম্মেদ মজুমদার। কয়েক মাস পর সুমন আহম্মেদ মজুমদার আইনশৃংখলা বাহিনীর হাতে গ্রেফতার হয়ে মৃত্যু হয়।
ঘটনার পর গাজীপুর সিটির ৪৬ নং ওয়ার্ডের (সাবেক ১০ নং ওয়ার্ড) কেরানীর টেক এলাকায় বিদ্যমান ২ টাকার সমিতি নামে পরিচিত ও তৎকালীন যুব সংহতি ক্লাব নামে পরিচিত ক্লাবকে নতুন নামকরন করা হয় ‘শহীদ সুমন আহম্মেদ মজুমদার স্মৃতি সংসদ’। উক্ত ক্লাবটি এখন পর্যন্ত ‘শহীদ সুমন আহম্মেদ মজুমদার স্মৃতি সংসদ’ নামেই পরিচিত।

সম্প্রতি উক্ত ক্লাবটির দখল ও আধিপত্য নিয়ে ক্ষমতাসীন দলের দু’টি পক্ষের মধ্যে বেশ কিছু দিন যাবত দ্বন্দ চলে আসছে। মঙ্গলবার রাতে ক্লাবের মেরামত কাজ নিয়ে আওয়ামীলীগ নেতা ও সুমন আহম্মেদ মজুমদারের বাবা মনির আহম্মেদ মজুমদার ও তার ছেলে সাদ্দামের সাথে অপর পক্ষের আক্তার হোসেন ও নুর মোহম্মদসহ তাদের লোকজনের কথাকাটি হয়।

এনিয়ে উভয় পক্ষের মধ্যে বিরোধ সৃষ্টি হয়। এবিরোধের জের ধরে বুধবার রাত সাড়ে ৭ টায় মনির আহম্মেদ মজুমদার ও সাদ্দাম হোসেন মজুমদার গ্রুপের সাথে আক্তার হোসেন ও নুর মোহম্মদ গ্রুপের সংঘর্ষ বাধে। এ সময় উভয় পক্ষ আগ্নেয়াস্ত্রসহ দেশীয় অস্ত্রসস্ত্রে সজ্জিত হয়ে ব্যাপক সংঘর্ষ হয়। সন্ত্রাসীদের হামলায় উল্লেখিত ব্যক্তিরা আহত হয়।

এসময় ফাঁকা গুলি ও ককটেল বিস্ফোরণ ঘটিয়ে এলাকায় আতঙ্ক সৃষ্টি করে উভয় পক্ষ। এ ঘটনায় পাল্টাপাল্টি উভয়পক্ষ টঙ্গী পূর্ব থানায় লিখিত অবিযোগ দায়ের করেন। ঘটনার পরপর স্থানীয় থানা পুলিশ ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছেন। এ বিষয়ে যোগাযোগ করা হলে গাজীপুর মেট্রোপলিটন পুলিশের উপ- পুলিশ কমিশনার (অপরাধ দক্ষিন) মোঃ ইলতুৎ মিশ ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে জানান, পুলিশ ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছে। এই ঘটনায় আইনগত ব্যাবস্থা প্রক্রিয়াধীন।
মৃণাল চৌধুরী সৈকত, টঙ্গী