কালিয়াকৈরে বকেয়া বেতনের দাবিতে ঢাকা-টাঙ্গাইল মহাসড়কে বিক্ষোভ

salim rana

গাজীপুরের কালিয়াকৈরে কারখানার শ্রমিকরা বকেয়া বেতনের দাবিতে ঢাকা-টাঙ্গাইল মহাসড়কের শান্তিপূর্ণভাবে বিক্ষোভ মিছিল করে। পরে কারখানার সামনে সংক্ষিপ্ত আলোচনা সভার মধ্য দিয়ে পুনরায় অবস্থান ধর্মঘট করে। বৃহস্পতিবার সকালে উপজেলার চন্দ্রা পল্লী বিদুৎ বাজার এলাকায় ঢাকা টাঙ্গাইল মহাসড়কের সার্ভিস লাইন দিয়ে এপেক্স উইভিং কারখানা শ্রমিকরা বকেয়া বেতনের দাবিতে বিক্ষোভ মিছিল করে। এসময় মহাসড়কে যানচলাচল সাভাবিক রাখতে ও নাশকতা এরাতে গাজীপুর ইন্ডাস্ট্রিয়াল পুলিশ কঠোর অবস্থান নেয় । ঈদের ছুটি শেষে গত ৯ মে কারখানা খুলে দেয়ার কথা থাকলেও শ্রমিকরা কর্মস্থলে যোগ দিতে আসে। মালিক পক্ষ থেকে কারখানা মূল ফটকে তালা ঝুলিয়ে দেয়। বকেয়া বেতন পরিশোধ না করে অবৈধভাবে কারখানা বন্ধের নোটিশ ঝুলিয়ে দেয় । একপর্যায়ে শ্রমিকরা ক্ষিপ্ত হয়ে অবস্থান ধর্মঘট করে। ঘটনাস্থলে ইন্ডাস্ট্রিয়াল পুলিশের সহায়তায় শ্রমিকপক্ষের সাথে মালিকপক্ষের সমঝোতার কথা থাকলেও তেমন কোনো আশার আলো দেখতে পায়না বিক্ষিপ্ত শ্রমিকরা । জলখানা মালিক পক্ষ থেকে একপর্যায়ে কর্মরত সকল শ্রমিকদের পাওনা দিয়ে দিয়ে পুনরায় কারখানা খুলে দেয়ার প্রতিশ্রুতি দিলেও তা বাস্তবায়ন করতে পারেনি কারখানা কর্তৃপক্ষ। এতে শ্রমিকরা আরো ক্ষিপ্ত হয়ে ১২ মে উপজেলার সফিপুর বাজারে অবস্থান ধর্মঘট করার চেষ্টা করলে পুলিশ এসে শ্রমিকদের ছত্রভঙ্গ করে দেয় ।এদিকে দীর্ঘ ১১ দিন ধরে চলা অবস্থান ধর্মঘট শেষে কারখানার সামনে থেকে শ্রমিকরা বিক্ষোভ মিছিল বের করে। এসময় বিক্ষোভ মিছিল টি পূর্ব চান্দরা রেললাইন বাজার হয়ে চন্দ্রা পল্লী বিদুৎ বাজারের ঢাকা টাঙ্গাইল মহাসড়কের আনসার একাডেমির তিন নাম্বার গেইট এলাকা হয়ে পাষা গেইট এলাকার এসে মিছিল টি শেষ হয়। এসময় কারখানার সামনে ৫ শতাধিক শ্রমিক নিয়ে ইউনিয়ন শ্রমিক নেতারা উপস্থিত বক্তব্য রাখেন গার্মেন্ট শ্রমিক ট্রেড ইউনিয়নের উপজেলা শাখার সভাপতি আমিনুল ইসলাম,এপেক্স উইভিং লিমিটেড এর শ্রমিক ইউনিয়নের সভাপতি শহিদুল ইসলাম,সাধারণ সম্পাদক আলম সরকার। এসময় শ্রমিক নেতারা জানান ১৭ ও ১৮ মে কারখানার মালিক পক্ষ দফায় দফায় বৈঠক শেষে শ্রমিক ও মালিক পক্ষের কোন সমঝোতা আসতে পারেনি। এদিকে শ্রমিকদের দাবি আগামী ৩০ মে এর মধ্যে সকল বকেয়া বেতন পাওনাদি মিটিয়ে দাওয়ার দাবি থাকলেও মালিক পক্ষ ও শ্রমমন্ত্রনালয়ের কর্ম কর্তাগন আগামী ১৫ই জুনের মধ্যে সকল বকেয়া বেতন দেওয়ার আশ্বাস দেন। ফলে এই সিদ্ধান্ত শ্রমিকরা না মেনে তারা ঢাকা টাঙ্গাইল মহাসড়কে বিক্ষুপ মিছিল করে। এ বিষয়ে গাজীপুর ইন্ড্রাষ্টিয়াল পুলিশের ইনস্পেক্টর আবু মোসাদ্দেম আলী জানান শ্রমিকদের দাবি ৩০ মে বকেয়া বেতন দেওয়ার। আর মালিক ও শ্রমমন্ত্রনালের কর্ম কর্তারা ১৫ জুন বকেয়া বেতন পরিশোধ কথা বলেছেন। এ বিষয়ে আবার বৈঠক হবে বলে জানান। শ্রমিক নেতারা জানিয়েছেন, বেতন ভাতা ও বেআইনি ভাবে বন্ধ করে দেওয়া কারখানা খুলে কর্ম পরিবেশ সৃষ্টি করা আগ পর্যন্ত আন্দোলন অব্যাহত থাকবে।a
মোঃ সেলিম রানা কালিয়াকৈর গাজীপুর প্রতিনিধি

0 Shares
  • 0 Facebook
  • Twitter
  • LinkedIn
  • Mix
  • Email
  • Print
  • Copy Link
  • More Networks
Copy link
Powered by Social Snap