কাচ কলার চিপস কি সত্যিই স্বাস্থ্যকর!

banana chips

কলা একটি স্বাস্থ্যকর খাবার। এদিকে চিপস মানেই স্বাস্থ্যের জন্য উপকারী নয়, এমন একটি ধারণা প্রচলিত রয়েছে। কারণ চিপস প্রক্রিয়াজাত খাবার এবং সোডিয়ামে ভরা। তবে কলার চিপসের ক্ষেত্রে অনেকের ধারণা ভিন্ন।

এই চিপসকে স্বাস্থ্যকর মনে করা হয় কারণ কলা আমাদের শরীরের জন্য ভালো।ছোট-বড় সবারই পছন্দের খাবার চিপস। চিপসের নাম শুনলেই মনে আসে আলুর কথা। ক্ষতিকর পট্যাটো চিপসের বদলে প্রাণভরে খান সুস্বাদু অথচ স্বাস্থ্যকর কাচ কলার চিপস।

কলার পাতলা পাতলা টুকরা করে শুকিয়ে নিয়ে ভেজে কলার চিপস তৈরি করা হয়। এর সঙ্গে মেশানো হয় চিনির সিরাপ, লবণ এবং নানা ধরনের মশলা। কলা যথেষ্ট স্বাস্থ্যকর হলেও কলার চিপস কি সেরকমই স্বাস্থ্যকর? চলুন জেনে নেয়া যাক-

পুষ্টিগুণ:

কলা প্রাকৃতিক খাবার। কিন্তু কলার চিপস প্রক্রিয়াজাত খাবার। তেলে ভেজে মধু বা চিনির সিরাপ মিশিয়ে তৈরি করা কলার চিপসে প্রচুর ক্যালোরি থাকে। এককাপ বা ৭২ গ্রাম কলার চিপসের মধ্যে থাকে ৩৭৪ ক্যালোরি।

এছাড়া এই পরিমাণ কলার চিপসে থাকে ১.৬ গ্রাম প্রোটিন, ৪২ গ্রাম কার্বোহাইড্রেট, ৫.৫ গ্রাম ফাইবার, ২৫ গ্রাম চিনি, ২৪ গ্রাম ফ্যাট এবং ২১ গ্রাম স্যাচুরেটেড ফ্যাট, প্রতিদিনের প্রয়োজনীয় পটাসিয়ামের ৮ শতাংশ এবং ভিটামিন বি৬-এর ১১ শতাংশ।

এই চিপসে ফাইবার, ভিটামিন এবং মিনারেলস থাকে। কিন্তু এর মধ্যে প্রচুর ক্যালোরি, চিনি এবং ফ্যাট থাকায় কলার চিপসকে স্বাস্থ্যকর নাস্তা বলা যায় না। কলা শুকিয়ে ভেজে তৈরি করা এই চিপস সুস্বাদু হওয়ায় এটি অতিরিক্ত খেয়ে ফেলার সম্ভাবনাও থাকে যথেষ্ট।

এর মধ্যে প্রচুর ক্যালোরি ও কার্বস থাকায় বাইরে প্রচুর ঘোরাঘুরির মাঝে এই চিপস অল্প পখাওয়া যেতে পারে। তাতে সহজে এনার্জি পাওয়া যাবে।

অপকারিতা:

মচমচে করার জন্য কলা ডিপ ফ্রাই করে চিপস বানানো হয়। কলার চিপসে প্রচুর স্যাচুরেটেড ফ্যাট থাকে। কলার চিপস বেশি খেলে হার্টের অসুখ হওয়ার সম্ভাবনা বেড়ে যায়। কলায় যে পরিমাণ ক্যালোরি থাকে, সেই কলা দিয়ে তৈরি চিপসে ২৫০ শতাংশ বেশি ক্যালোরি থাকে।

আরও পড়ুনঃ করোনার ঝুঁকি এড়াতে ডায়াবেটিস রোগীরা যা খাবেন

কিছু কলার চিপসে চিনির সিরাপের কোটিং থাকে। এক কাপ কলার চিপসে ২৫ গ্রাম চিনি থাকে। এর মধ্যে ১০.৫ গ্রাম বাইরে থেকে যোগ করা চিনি এবং ১৪.৫ গ্রাম প্রাকৃতিক চিনি।

অনেকের মনে প্রশ্ন জাগে, কলার চিপস কি আলুর চিপসের থেকে বেশি স্বাস্থ্যকর? একটি আস্ত কলা সব সময় কলার চিপসের থেকে অনেক বেশি উপকারী। কিন্তু আলুর চিপসের থেকে কলার চিপসে বেশি ক্যালোরি, বেশি স্যাচুরেটেড ফ্যাট এবং বেশি চিনি থাকে। তবে আলুর চিপসও বেশি খাওয়া কখনোই ঠিক নয়।