কলার খোসা না ফেলে কাজে লাগান

banana peel for wrinkles

কলার গুণাগুন সম্পর্কে আমরা সবাই জানি। এটি এমন একটি ফল যা কিনা একসঙ্গে সহজলভ্য ও পুষ্টিকর। কিন্তু অনেকেই হয়তো জানেন না, কলার মতো কলার খোসাও উপকারী।

বিশেষ করে রূপচর্চার নানা কাজে কলার খোসা বেশ কার্যকরী। কলার খোসায় প্রচুর প্রয়োজনীয় মিনারেল আর পর্যাপ্ত অ্যান্টি অক্সিডান্ট রয়েছে। তাই কলা খেয়ে খোসা না ফেলে দিয়ে বরং তা রূপচর্চার কাজে লাগান-

ব্রণের সমস্যায় :

ব্রণের সমস্যায় ভুক্তভোগীর সংখ্যা সবচেয়ে বেশি। এই ব্রণ দূর করতেও কার্যকরী কলার খোসা। ব্রণ লাল হয়ে ফুলে আছে, সঙ্গে ব্যথাও রয়েছে? ব্রণর উপর কলার খোসা ঘষুন। এক সপ্তাহের মধ্যে হাতেনাতে ফল পাবেন।

বলিরেখা দূর করতে:

নিয়মিত কলা খেলে বলিরেখা বা সূক্ষ্ম রেখার সমস্যা এমনিতেই কম হয়। বাড়তি উপকার পেতে একটা কলার খোসা বেটে নিন। তাতে একটা ডিমের কুসুম মিশিয়ে পেস্টের মতো তৈরি করুন। এই পেস্টটা মুখে মেখে পাঁচ মিনিট রেখে ঠান্ডা পানিতে ধুয়ে নিন। ত্বক নরম আর মসৃণ হয়ে যাবে।

দাঁতের যত্নে:

বিশ্রী হলদে ছোপ ধরেছে দাঁতে? এক্ষেত্রে আপনাকে মুক্তি দিতে পারে কলার খোসা। খোসার ভিতরদিকের সাদা অংশটা দাঁতে প্রতিদিন খানিকক্ষণ ঘষুন। এক সপ্তাহ পর মুক্তোর মতো দাঁত দেখে নিজেই চমকে যাবেন!

আরও পড়ুনঃ সবচেয়ে সহজে ঘরেই বানান চিলি চিকেন

আঁচিল কমাবে কলার খোসা:

যাদের ঘন ঘন আঁচিল হয়, তারাও কলার খোসা থেকে উপকার পাবেন। আঁচিলের উপর কলার খোসার সাদা অংশটা ঘষুন। তারপর একটুকরো খোসা আঁচিলের উপর চাপা দিয়ে গজ ব্যান্ডেজ দিয়ে মুড়ে দিন। কিছুদিন করলেই চিরতরে বিদায় নেবে আঁচিল।

মশার কামড়:

হাত-পায়ে মশার কামড়ের ফলে চুলকে চুলকে লাল হয়ে ফুলে উঠেছে? আপনাকে জ্বালা আর চুলকানি থেকে মুক্তি দিতে পারে কলার খোসা। কামড়ানোর জায়গাটায় কলার খোসা ঘষুন, দেখতে দেখতে জ্বালা আর চুলকানি দুটোই কমে যাবে, ত্বকও শীতল হবে।

Comments
0