কলাবাগে ছাত্রীর রহস্যজনক মৃত্যু

dead

রাজধানীর কলাবাগে একটি বাড়ীর ছাদ থেকে ফেলে দিয়ে এক বিশ্ববিদ্যালয় শিক্ষার্থীকে হত্যার অভিযোগ পাওয়া গেছে। তার নাম তাজমিয়া মোস্তফা মৌমিতা (১৯)। তিনি মালয়েশিয়ার একটি বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয়ে পড়াশুনা করতেন।

কলাবাগান থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) পরিতোষ চন্দ্র ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে বলেন, মৌমিতা নামের এক শিক্ষার্থীর মরদেহ হাসপাতাল থেকে উদ্ধার করেছি। পরিবার ছাদ থেকে ফেলে দেওয়ার অভিযোগ করেছে। মরদেহ ময়নাতদন্তের জন্য ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে পাঠানো হবে।

শুক্রবার সন্ধ্যায় এ দুর্ঘটনা ঘটে। আহতাবস্থায় তাকে ধানমন্ডি গ্রিন লাইফ হাসপাতালে নিয়ে গেলে চিকিৎসক মৃত ঘোষণা করেন।

নিহত মৌমিতার ফুফা হুমায়ুন কবির গণমাধ্যমকে জানান, মৌমিতা স্বপরিবারে মালয়েশিয়া থাকতো। দুই মাস আগে দেশে এসে বাবা মো. শামীমের সঙ্গে ঢাকার ধানমন্ডি ৮ নম্বর রোডের ২ নম্বর বাসায় থাকতো। তাদের গ্রামের বাড়ি টাঙ্গাইল জেলার ভুয়াপুর উপজেলায়।

তিনি জানান, সন্ধ্যায় সংবাদ পাই ছাদ থেকে পড়ে মারা গেছে মৌমিতা। কিন্তু ছাদ থেকে পড়ে মারা যাওয়ার মত কোনও কারণ পাইনি।

আরও পড়ুনঃ পাঁচবিবিতে ফেনসিডিলসহ মাদক চোরাকারবারি আটক

হুমায়ুন আরও জানান, একই বাসার ৫ তলার ভাড়াটিয়া এক যুবক মৌমিতাকে উক্ত্যক্ত করতো। এ ব্যাপারে তার পরিবারকে জানানো হলেও তারা এ বিষয়ে কোনও ব্যবস্থা নেয়নি। আমাদের ধারণা ওই যুবক মৌমিতাকে ছাদ থেকে ফেলে দিয়ে হত্যা করেছে। পুলিশ বিষয়টি তদন্ত করছে।