করোনায় বিদ্যালয় বন্ধ এসেছে ভূতুড়ে বিদ্যুৎ বিল!

ময়মনসিংহের গৌরীপুরে বিভিন্ন সময় সেচ-আবাসিক লাইনের বিদ্যুৎ গ্রাহকদের বেশি বিলের পর এবার সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ে এসেছে ভ‚তুড়ে বিদ্যুৎ বিল। এই ভূতুড়ে বিল করে পাঠিয়েছে বিদ্যুৎ বিভাগ।
ময়মনসিংহের গৌরীপুরে বিভিন্ন সময় সেচ-আবাসিক লাইনের বিদ্যুৎ গ্রাহকদের বেশি বিলের পর এবার সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ে এসেছে ভ‚তুড়ে বিদ্যুৎ বিল। এই ভূতুড়ে বিল করে পাঠিয়েছে বিদ্যুৎ বিভাগ।
কোভিড-১৯ এর কারণে জন্য প্রায় দেড় বছর ধরে বন্ধ দেশের সকল শিক্ষা প্রতিষ্ঠান। তবুও গৌরীপুর পৌর মডেল সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের নামে এপ্রিল মাসে ৪২ হাজার টাকার বিল পাঠিয়েছে গৌরীপুর বিদ্যুৎ অফিস! যা বিগত মাসের বকেয়া বিলের চেয়ে ২৪ হাজার টাকা বেশি।
বিল দেখে হতভম্ব বিদ্যালয়ের প্রধান শিক মাজহারুল আনোয়ার ফেরদৌস। তিনি জানান, করোনার জন্য বিদ্যালয় দীর্ঘদিন যাবত বন্ধ। নিয়মানুযায়ী প্রতিমাসে ৭৫ ইউনিট করে গড় বিল করার কথা। পূর্বের কিছু বিল আমাদের বকেয়া আছে, গত মার্চ পর্যন্ত বকেয়া বিল ছিলো ১৮ হাজার ৮৮৬ টাকা। মিটারের রিডিং অনুযায়ী এটা ঠিক ছিল। গত রবিবার (২৩ মে) এপ্রিল মাসের বিদ্যুৎ বিল হাতে পাই। বিলে ৪২ হাজার ৭ টাকা উল্লেখ রয়েছে। অর্থাৎ বন্ধ বিদ্যালয়ের এপ্রিল মাসে প্রায় ২৪ হাজার টাকা বিল করেছে বিদ্যুৎ অফিস।
গৌরীপুর উপজেলা প্রাথমিক শিক্ষা কর্মকর্তা মনিকা পারভীন বলেন, দীর্ঘদিন যাবত বিদ্যালয় বন্ধ রয়েছে, এধরণের ভূতুড়ে বিল কোন অবস্থাতেই কাম্য নয়।
গৌরীপুর আবাসিক প্রকৌশলী (বিদ্যুৎ) বিল্লাল হোসেন বলেন, বিল করার সময় ভুল হতে পারে, বিলের কপি হাতে পেলে বিষয়টি সংশোধনের ব্যবস্থা করব।
হলি সিয়াম শ্রাবণ, গৌরীপুর (ময়মনসিংহ) প্রতিনিধি