এবার মা-মেয়েকে একসাথে গণধর্ষণ

This time mother and daughter were gang raped together

এবার হবিগঞ্জের চুনারুঘাট উপজেলায় বাড়িতে ডাকাতি করতে এসে মা ও মেয়েকে একসাথে গণধর্ষণ করা হয়েছে। শুক্রবার (০২ অক্টোবর) রাতে উপজেলার রানীগাঁও ইউনিয়নের পাহাড়ি এলাকায় এ গণধর্ষণের ঘটনা ঘটে।

শনিবার (০৩ অক্টোবর) এ ঘটনায় চুনারুঘাট থানায় মামলা করা হয়েছে। তবে রোববার (০৪ অক্টোবর) বিকেল পর্যন্ত ঘটনায় জড়িতদের গ্রেফতার করতে পারেনি পুলিশ।

পুলিশ জানায়, চুনারুঘাট উপজেলার রানীগাঁও ইউনিয়নের পাহাড়ি এলাকার গরমচড়ি ফরেস্ট মাজারসংলগ্ন একটি বাড়িতে শুক্রবার গভীর রাতে প্রবেশ করে একদল যুবক।

ঘরে ঢুকে মা-মেয়েকে বেঁধে ফেলেন তারা। পরে স্বর্ণের গহনা, টাকা-পয়সা, গরু ও প্রয়োজনীয় জিনিসপত্র লুটপাট করেন যুবকরা। লুটপাট শেষে মা (৪৫) ও মেয়েকে (২৫) গণধর্ষণ করে পালিয়ে যান তারা।

ডাকাতরা চলে গেলে মা-মেয়ের চিৎকারে প্রতিবেশীরা এগিয়ে আসেন। প্রতিবেশীরা তাদের উদ্ধার করে প্রাথমিক চিকিৎসা দেন।

স্থানীয় ইউপি সদস্য (মেম্বার) আব্দুল মালেক বলেন, স্বর্ণের গহনা, টাকা-পয়সা লুটপাট করে মা ও মেয়েকে একসাথে গণধর্ষণ করেছে ডাকাতরা। ডাকাত দলের এক যুবককে চিনতে পেরেছেন ভুক্তভোগীরা। এজন্য তারা মামলা করেছেন।

ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে চুনারুঘাট থানা পুলিশের ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি-তদন্ত) চম্পক দাম বলেন, বাড়িতে ডাকাতি করতে এসে মা-মেয়েকে গণধর্ষণ করা হয়েছে। এ ঘটনায় মামলা হয়েছে।

তিনি বলেন, মামলার আসামিদের আটকের স্বার্থে নাম-ঠিকানা গোপন রেখেছি আমরা। বিষয়টি তদন্ত করে ঘটনায় জড়িতদের দ্রুত সময়ের মধ্যে আটক করা হবে।

আরও পড়ুনঃ বিয়ের প্রলোভনে স্বামী পরিত্যক্তাকে নিয়মিত ধর্ষণ

গত ২৫ সেপ্টেম্বর রাতে এমসি কলেজে স্বামীর সঙ্গে বেড়াতে গিয়ে গণধর্ষণের শিকার হন এক গৃহবধূ। এ ঘটনায় ওই গৃহবধূর স্বামী বাদী হয়ে শাহপরান থানায় মামলা করেন।

মামলায় ছাত্রলীগের ছয় নেতাকর্মীসহ অজ্ঞাত আরও তিনজনকে আসামি করা হয়। এ ঘটনায় আটজনকে গ্রেফতার করা হয়েছে।