ইসরাইল রাষ্ট্রের জন্মকথা - Metronews24 ইসরাইল রাষ্ট্রের জন্মকথা - Metronews24

ইসরাইল রাষ্ট্রের জন্মকথা

Md Riadul Islam

প্রথম বিশ্বযুদ্ধ শুরু হওয়ার পর ব্রিটেন বেশ চাপে পড়ে। মূলত বিশ্বযুদ্ধগুলো ছিল বিজ্ঞানীদের আবিষ্কারের লড়াই। যে দেশের বিজ্ঞানী যত বেশি যুদ্ধাস্ত্র আবিষ্কার করতে পারবে যুদ্ধ জয়ের সম্ভাবনা তাদের তত বেশি হবে।

প্রথম বিশ্বযুদ্ধে সবচেয়ে বেশি প্রচলিত ছিল ডিনামাইট জাতীয় বিস্ফোরক। এই বিস্ফোরক তৈরির অন্যতম প্রধান কাঁচামাল এসিটোন। সে সময় এসিটোন উৎপাদন করা হত রাসায়নিক উপায়ে, যার উৎপাদন ক্ষমতা ছিল খুবই স্বল্প। এসিটোনের অভাবে ব্রিটেন হারতে পর্যন্ত বসেছিল।

তখন বিজ্ঞানী শাঈম ওয়াইজম্যান ব্যাকটেরিয়ার মাধ্যমে এসিটোন উৎপাদনের পদ্ধতি আবিষ্কার করেন। যার ফলে ব্রিটেনের বিস্ফোরক সংখ্যা বাড়ল। শাঈম ওয়াইজম্যান এর এসিটোন আবিষ্কার ব্রিটেনের দ্বিতীয় বিশ্বযুদ্ধ জয়ের অন্যতম প্রধান কারন।

যুদ্ধশেষে ব্রিটেনের রাণী তাকে পুরস্কার দিতে চাইলেন, তখন শাঈম ওয়াইজম্যান টাকা নিতে অস্বীকার করেন, তিনি তার আবিষ্কার স্বরূপ চেয়ে বসলেন ইহুদিদের জন্য একটি রাষ্ট্র, সে রাষ্ট্রই আজকের ইসরাইল। ব্রিটেনের নির্দেশেই ইহুদিরা প্যালেস্টাইনে বসতি স্থাপন করে, পরে ধীরে ধীরে প্যালেস্টাইন দখল করে নেয়।

১৯৪৮ সালে ইসরাইল রাষ্ট্রের জন্ম হয়। ১৯৪৮ সালেই সিরিয়া, মিশর, ফ্রান্স, জর্ডান, লেবানন ও ইরানের সাথে ইসরাইলের যুদ্ধ হয়। ১৯৫৬ সালে মিশর সুয়েজ খাল জাতীয়করণ করলে ইসরাইল মিশর আক্রমণ করে। ১৯৬৭ সালে ইসরাইল মিশর, সিরিয়া, জর্ডান আক্রমণ করে। এবং গাজা, সিনাই, পশ্চিম তীর ও সিরিয়ার গোলান উপত্যকা দখল করে ইসরাইল।

১৯৮১ সালে ইসরাইল ইরানের পারমানবিক কেন্দ্রে বোমাবর্ষণ করে। ইসরাইল রাষ্ট্রের জন্ম ২০ শতকের পঞ্চম দশকে হলেও ইসরাইলের চেয়ে বেশি ২০ শতকে এত বেশিবার কোন রাষ্ট্রই যুদ্ধে জড়ায়নি।

কামরুল হাসান মানিক

Share