ইরানের ব্যাপক প্রস্তুতি, ড্রোন হামলা আতঙ্কে যুক্তরাষ্ট্র

US prepares for possible Iranian reprisal after drone strike

ইরানি জেনারেল কাসেম সোলাইমানিকে হত্যার প্রতিশোধ হিসেবে বুধবার ইরাকে অবস্থিত দু’টি মার্কিন সামরিক ঘাঁটিতে ক্ষেপণাস্ত্র হামলা চালিয়েছে তেহরান।

এবার ইরানের ড্রোন হামলা আতঙ্কে ভুগছে যুক্তরাষ্ট্র। মধ্যপ্রাচ্যজুড়ে মার্কিন সামরিক স্থাপনাগুলোতে হামলা চালানোর লক্ষ্যে ব্যাপক প্রস্তুতি নিচ্ছে তেহরান। মার্কিন গোয়েন্দা সংস্থাগুলোর বরাত দিয়ে এ খবর জানিয়েছে মার্কিন সংবাদমাধ্যম সিএনএন।

খবরে বলা হয়েছে, মার্কিন সামরিক স্থাপনাগুলোতে ড্রোন হামলার লক্ষ্যে সামরিক সাজ-সরঞ্জাম মোতায়েন করছে তেহরান। মার্কিন প্রতিরক্ষা মন্ত্রণালয় সম্ভাব্য ড্রোন হামলা প্রতিরোধে সেনাদের সর্বোচ্চ সতর্ক থাকতে বলেছে।

সেই সঙ্গে সতর্ক রাখা হয়েছে আকাশ প্রতিরক্ষা ব্যবস্থা ও যুদ্ধবিমানগুলোও। ইরানি কোনো ড্রোন দেখলেই গুলি করে ভূপাতিত করার নির্দেশও দেয়া হয়েছে সেনাদের।

আরও পড়ুনঃ মার্কিন বিমানঘাঁটি গুড়িয়ে দিল ইরান

এদিকে, মার্কিন প্রতিরক্ষামন্ত্রী মার্ক এসপার বলেছেন, যুক্তরাষ্ট্র ইরানের সঙ্গে কোনো প্রকার যুদ্ধে যেতে চায় না। তবে যুদ্ধ শুরু হলে তা শেষ করার জন্য যুক্তরাষ্ট্র প্রস্তুত। মার্কিন সংবাদমাধ্যম সিএনএনের সঙ্গে এক সাক্ষাৎকারে মঙ্গলবার এ কথা জানান তিনি।

তিনি বলেন, আমরা ইরানের সঙ্গে যুদ্ধ শুরুর চিন্তা করছি না, তবে (যুদ্ধ শুরু হলে) তা শেষ করার জন্য আমরা প্রস্তুত। ইরাকি পার্লামেন্টে বিদেশি সেনা প্রত্যাহারের বিষয়ে প্রস্তাব পাস করা হলেও যুক্তরাষ্ট্র ইরাক থেকে সেনা প্রত্যাহারের চিন্তা করছে না।

ইরানি জেনারেল কাসেম সোলেমানিকে হত্যার বৈধতা প্রসঙ্গে তিনি বলেন, এক সন্ত্রাসী নেতা অপর সন্ত্রাসী নেতার সঙ্গে সাক্ষাতে গিয়েছিল এবং মার্কিন কূটনীতিক, সেনা ও স্থাপনার বিরুদ্ধে হামলার পরিকল্পনা করছিল। আমি মনে করি, আমরা যুদ্ধক্ষেত্র থেকে এদের সরিয়ে দিয়ে সঠিক সিদ্ধান্তই নিয়েছি।

0 Shares
  • 0 Facebook
  • Twitter
  • LinkedIn
  • Mix
  • Email
  • Print
  • Copy Link
  • More Networks
Copy link
Powered by Social Snap