ইরানের পরমাণু গোপন তথ্য শত্রুর হাতে তুলে দিচ্ছে আইএইএ

Mojtaba Zonnour

আন্তর্জাতিক আণবিক শক্তি সংস্থা (আইএইএ ) ইরানের পরমাণু কর্মসূচির গোপন তথ্য তেহরানের শত্রুর হাতে তুলে দিচ্ছে অভিযোগ করেছে ইরানের জাতীয় সংসদের জাতীয় নিরাপত্তা ও পররাষ্ট্রনীতি বিষয়ক কমিশনের চেয়ারম্যান মুজতবা জুন্নুরি ।

এছাড়া বিভিন্ন পর্যায়ে জাতিসংঘের ওই সংস্থা বিশ্বস্ততা ভঙ্গ করছে বলেও তিনি অভিযোগ করেছেন।

সম্প্রতি ইরানের বেসামরিক পরমাণু কর্মসূচি সংক্রান্ত তথ্য আইএইএ’র মাধ্যমে ফাঁস হয়ে যাওয়ার ঘটনা তুলে ধরে জুন্নুরি সোমবার এক বক্তব্যে আরও বলেন, আইএইএ’র পরিদর্শক হয়ে যারা ইরান সফর করেন তাদের অনেকে পশ্চিমা দেশগুলোর গুপ্তচর।

এসব গুপ্তচর জাতিসংঘের কর্মকর্তা হিসেবে ইরানে আসলেও এদেশের যেসব তথ্য গোপন রাখার কথা সেগুলো তারা ইরানের শত্রুদের হাতে তুলে দিচ্ছেন।

সম্প্রতি ইরানের পার্লামেন্টে পাস হওয়া নতুন আইনের কথা উল্লেখ করে জুন্নুরি বলেন, এই আইন বাস্তবায়ন করলে আইএইএ’র পরিদর্শকরা আর এই অপকর্মটি করার সুযোগ পাবে না।

এর আগে গত শনিবার আইএইএ’তে নিযুক্ত ইরানের স্থায়ী প্রতিনিধি কাজেম গারিবাবাদি বলেছিলেন, আইএইএ’র ইরান সংক্রান্ত গোপন প্রতিবেদন প্রকাশ হয়ে যাওয়ার ব্যাপারে কঠোর আইনি পদক্ষেপ নেবে তেহরান।

তিনি এক সাক্ষাৎকারে বলেন, ইরানের পরমাণু কর্মসূচির পাশাপাশি আইএইএ’র সঙ্গে তেহরানের চিঠি আদান-প্রদানের সব তথ্য গোপন দলিল হিসেবে পরিগণিত; কাজেই এই গোপন দলিল ফাঁস হয়ে যাওয়ার বিষয়টিকে সহজে ছেড়ে দেবে না ইরান।

পশ্চিমা কিছু গণমাধ্যম গত শুক্রবার খবর দেয়, আইএইএ তার সদস্য দেশগুলোর কাছে এ তথ্য প্রকাশ করেছে যে, ইরান তার নাতাঞ্জ পরমাণু স্থাপনায় অত্যাধুনিক আইআর-২এম সেন্ট্রিফিউজের সংখ্যা বাড়ানোর সিদ্ধান্ত নিয়েছে।

গারিবাবাদি বলেন, আইএইএ’র গোপন প্রতিবেদন পশ্চিমা গণমাধ্যমে প্রকাশিত হওয়ার ঘটনা এর আগেও একাধিকবার ঘটেছে। কিন্তু এবার তেহরান আইনি ব্যবস্থা নেওয়ার ব্যাপারে দৃঢ়সংকল্প।

আরও পড়ুনঃ ইসরায়েলের সঙ্গে চুক্তির পর ব্যাপক সাইবার হামলা আমিরাতে

ইরানের ওপর থেকে নিষেধাজ্ঞা তুলে দেওয়ার লক্ষ্যে সেদেশের পার্লামেন্ট সম্প্রতি এক আইন পাস করার পর পশ্চিমা গণমাধ্যমে এ খবর প্রকাশিত হল। ইরানি পার্লামেন্টের আইনে বলা হয়েছে, আগামী তিন মাসের মধ্যে ইরানের ওপর থেকে আমেরিকার একতরফা নিষেধাজ্ঞা প্রত্যাহার করা না হলে নাতাঞ্জ পরমাণু স্থাপনায় অন্তত ১,০০০ আইআর-২এম সেন্ট্রিফিউজ স্থাপন করতে হবে।