ইতালি প্রবাসীকে ঢুকতেই দিল না বাড়ির মালিক

Italy to enter the diaspora

ইতালি থেকে আসা এক প্রবাসী চাঁদপুর শহরের জোড় পুকুর পাড় এলাকায় ভাড়াবাসায় তার স্ত্রী ও পরিবারের সঙ্গে দেখা করতে গেলে প্রথমে তাকে ঢুকতে দেননি বাড়ির মালিক। পরে জেলা সিভিল সার্জন সার্টিফিকেট দিলে সেটি দেখে তাকে ঢুকতে দেয়া হয় বলে জানা গেছে।

ওই ব্যক্তি অভিযোগ করেন, ইতালি থেকে তার কোনো সমস্যা হয়নি এমন সার্টিফিকেট নিয়েই দেশে এসেছেন। সেটি দেখানোর পরও তাকে বাড়িতে ঢুকতে না দেয়ায় তিনি চাঁদপুর জেলা সিভিল সার্জনের শরণাপন্ন হন।

তখন সিভিল সার্জন ডা. সাখাওয়াত হোসেন জেলা প্রশাসকের সঙ্গে পরামর্শক্রমে আরেকটি সার্টিফিকেট প্রদান করার প্রায় ৬ ঘণ্টা পর তিনি ওই বাড়িতে ঢোকার অনুমতি পান।

এদিকে করোনা ভাইরাসের সংক্রমণ ঠেকাতে বিদেশ ফেরত চাঁদপুরের ৪৯৬ জনকে ‘হোম কোয়ারেন্টাইনে’ থাকার নির্দেশ দিয়েছে চাঁদপুর জেলা প্রশাসন। চাঁদপুরের অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক মোহাম্মদ আব্দুল্লাহ আল মাহমুদ জামান বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।

তিনি বলেন, গত ২৫ ফেব্রুয়ারি থেকে ১১ মার্চ পর্যন্ত বিভিন্ন দেশ থেকে চাঁদপুরে আসেন ৪৯৬ জন প্রবাসী। জেলা প্রশাসক মাজেদুর রহমানের নির্দেশে আমরা তাদের তথ্য সংগ্রহ করে যার যার বাড়িতে কোয়ারেন্টাইনের ব্যবস্থা করেছি।

জেলা সিভিল সার্জনের নেতৃত্বে স্বাস্থ্য বিভাগ ও পুলিশ সুপারের নেতৃত্বে পুলিশ বিভাগ এ কাজে তাদের সহায়তা করছে বলেও জানান তিনি।

আরও পড়ুনঃ এবার জাস্টিন ট্রুডোর স্ত্রী সোফি করোনায় আক্রান্ত

অপরদিকে চাঁদপুর জেলা প্রশাসনের সহযোগিতায় বৃহস্পতিবার সকাল থেকে করোনা সচেতনতায় বিভিন্ন শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে ও জনসমাগমস্থল যেমন লঞ্চঘাট ও বাসস্ট্যান্ড এলাকায় লিফলেট বিতরণ শুরু হয়েছে।

চাঁদপুর সিভিল সার্জন ডা. সাখাওয়াত হোসেন বলেন, আমরা চাঁদপুরে করোনা প্রতিরোধমূলক সব ধরনের ব্যবস্থা নিয়েছি। এজন্য পুরো জেলায় ১০০ শয্যার আইসোলেশন ওয়ার্ডসহ সব ধরনের প্রস্তুতি রাখা হয়েছে।

তবে চাঁদপুরে এখন পর্যন্ত কেউ করোনায় আক্রান্ত না হলেও এর প্রভাবে বিভিন্ন শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে শিক্ষার্থীদের উপস্থিতি কমে গেছে বলে জানা গেছে।

চাঁদপুর সরকারি মহিলা কলেজের অধ্যক্ষ মো. মাসুদুর রহমান বলেন, করোনার আতঙ্কে গত তিনদিন ধরে ক্লাসে শিক্ষার্থীদের উপস্থিতি অর্ধেকে নেমে এসেছে।

0 Shares
  • 0 Facebook
  • Twitter
  • LinkedIn
  • Mix
  • Email
  • Print
  • Copy Link
  • More Networks
Copy link
Powered by Social Snap