ইচ্ছে পূরণের ফেরিওয়ালা

shohel ahmed bhuiyan

পটুয়াখালী জেলার ষাটোর্ধ্ব আব্দুল জব্বার খান। নিরাপত্তা প্রহরী হিসেবে কাজ করছেন নারায়ণগঞ্জের সিদ্ধিরগঞ্জের একটি শপিংমলে। তাঁর ইচ্ছে ছিলো জীবনে একবার হলেও বিমানে ওঠা।

কিন্তু অভাবের সংসারে সেই ইচ্ছে অপূর্ণই রয়ে যায়। খবর পেয়ে তাঁর সাথে যোগাযোগ করেন সৌরভ ইমাম। অপূর্ণ ইচ্ছে পূরণ করতে বিমানে আব্দুল জব্বারকে কক্সবাজারে ঘুরিয়ে আনেন তিনি।

নিজের অপূর্ণ ইচ্ছে পূরণ হওয়ায় স্বাভাবিকভাবেই ব্যাপক উৎফুল্ল হন আব্দুল জাব্বার। একটি বেসরকারী প্রতিষ্ঠানের এক সন্তানের জনক নূর হোসেনের ইচ্ছে ছিলো একটি দামী রেস্তোয়ায় খাবার খাওয়ার। নুর হোসেনের সাথে যোগাযোগ করে তাঁকে প্যান প্যাসিফিক সোনাগাঁওয়ের মত ফাইভ স্টার হোটেলে দুপুরের খাবার খাইয়েছেন ইচ্ছেপূরণের এই ফেরিয়াওলা। এছাড়া কুমিল্লার দেবীদ্বার থানার আব্দুল মান্নান একটি সোয়েটার ফ্যাক্টরিতে চাকরি করতেন।

মহামারীর এই সময় ফ্যাক্টরিতে কাজ কম থাকায় চাকরি হারান তিনি। পরে নানান জায়গায় ধর্না দিয়েও চাকরি পাচ্ছিলেন না। দুই সন্তানের জনক আব্দুল মান্নান চাকরি হারিয়ে অনেকটা দিশেহারা হয়ে পড়েছিলেন। খবর পেয়ে তাঁর পাশে দাঁড়ান সৌরভ ইমাম। সিদ্ধিরগঞ্জের একটি ডিপার্টমেন্টাল স্টোরে তার চাকরির ব্যবস্থা করেন। এর আগে বিভিন্ন সময় পথ শিশুদের পাশে থেকেছেন তিনি।

ভালোবাসা দিবসে পথ শিশুদের জন্য বিশেষ অনুষ্ঠান করার পরিকল্পনাও তাঁর। অনেক পথ শিশু এবং গরীব শ্রমিকদের লেখা পড়ার খরচ দিয়েছেন। ইচ্ছে পূরণের এই আইডিয়া মানুষের প্রতি ভালোবাসা থেকেই বলে জানান সৌরভ ইমাম।

পিছিয়ে পড়া মানুষদের অনেক ইচ্ছেই অপূর্ন থাকে। সামর্থবান লোকজন এগিয়ে আসলে আমাদের আশেপাশের অনেক পিছিয়ে মানুষের ইচ্ছে পূরন করার সম্ভব বলে মনে করছেন তিনি। ভবিষ্যতে নিজের সামর্থ অনুযায়ী ইচ্ছে পূরনের এই কার্যক্রম অব্যহত রাখবেন বলে জানান সৌরভ। পাশাপাশি সচেনতনামূলক এবং ফানি ভিডিও নির্মান করবেন। এছাড়া ভ্রমন নিয়ে তাঁর একাধিক কনটেন্ট মানুষ দারুণভাবে গ্রহণ করেছে।

ইংল্যান্ড, নিউজিল্যান্ডসহ তিনটি মহাদেশের একাধিক দেশ ভ্রমণ করে ভিডিওগুলো নির্মাণ করেন তিনি। সামনের দিনগুলোতে সময় পেলে ভিন্ন ভিন্ন দেশে গিয়ে আরো কনটেন্ট নির্মাণের পরিকল্পনার কথাও জানান। একটি বেসরকারি টেলিভিশনে সাংবাদিকতার পাশাপাশি মঞ্চে উপস্থাপনা করছেন সৌরভ ইমাম। এছাড়া, ফেসবুক ও ইউটিউবে বিভিন্ন (মানবিক কাজ,ফানি ভিডিও, সচেতনতামূলক ভিডিও) কনটেন্ট তৈরি করেন।

তাঁর একাধিক কনটেন্ট সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ব্যাপক সাড়া ফেলেছে। ‘ইচ্ছে পূরণ’ সিরিজের পাশাপাশি তাঁর একাধিক ফানি ভিডিও ভাইরাল হয়েছে। করোনা সময় সচেতনতামূলক অনেক ভিডিও নির্মান করেছেন, আর এইসব ভিডিওতে ক্রিকেট তারকা থেকে শুরু করে বিনোদন জগতের তারকারাও পাশে ছিলেন সৌরভের। একটা সময়ে তিনি টিভি নাটকে অভিনয় করতেন। পরে অভিনয় ছেড়ে সাংবাদিকতায় আসেন।

অভিনয় ছেড়ে সাংবাদিকতায় আসার কারণ জানতে চাইলে তিনি জানান,আমি শখের বশে অভিনয় করতাম। অভিনয় ছাড়লেও উপস্থাপনাটা করছি নিয়মিত, এছাড়া এখন সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ভিডিও নির্মাণ করছি। এই মাধ্যমটা অনেক শক্তিশালী।

তবে সমাজের মানুষের জন্য কাজ করার আগ্রহ ছিল আমার। পিছিয়ে পড়া মানুষের পাশে থাকতেই সাংবাদিকতায় এসেছি। যতদিন সামর্থ্য থাকে মানুষের জন্য ভালো কিছু কাজ করতে চান বলে জানান সৌরভ।

সোহেল আহমেদ ভূঁইয়া,নারায়ণগঞ্জ জেলা প্রতিনিধি

0 Shares
  • 0 Facebook
  • Twitter
  • LinkedIn
  • Mix
  • Email
  • Print
  • Copy Link
  • More Networks
Copy link
Powered by Social Snap