আহ্ছানিয়া মিশন যেটাই করেন সুন্দরভাবে করেন: স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী Dhaka Ahsania Mission

আহ্ছানিয়া মিশন যেটাই করেন সুন্দরভাবে করেন: স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী

Generic placeholder image
  Ashfak

স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খান কামাল, এমপি বলেন, আহ্ছানিয়া মিশন সমাজের জন্য কী প্রয়োজন তা তারা চিহ্নিত করে এবং তার প্রতিকারটা কি হবে সে অনুযায়ী কাজ করে। আহ্ছানিয়া মিশন মাদককে নিরুৎসাহিত করার জন্য সবজায়গায় প্রচেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছে।
 বিশেষ করে নারী মাদকাসক্তদের জন্য চিকিৎসা কেন্দ্রের মাধ্যমে কাজ করছে। তিনি আরও বলেন, আহ্ছানউল্লা বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ^বিদ্যালয়, আহ্ধসঢ়;ছানিয়া মিশন ক্যান্সার হসপিটালসহ বিভিন্ন প্রতিষ্ঠানের মাধ্যমে সমাজের শিক্ষা ও স্বাস্থ্যক্ষেত্রে তারা অত্যন্ত সুনামের সাথে কাজ করছে। 
আহ্ছানিয়া  যেটাই করে সুন্দরভাবে করে। ঢাকা আহ্ছানিয়া  মিশন আমার প্রাণের জায়গা। আমি ব্যক্তিগতভাবে মিশনের ভক্ত। তিনি আরও বলেন, এই সবকিছুর পিছনে রয়েছেন এই প্রতিষ্ঠানের সভাপতি কাজী রফিকুল আলম। তিনি চলতে পারছেননা তারপরও তিনি থেমে নেই। চলছেন এগিয়ে যাচ্ছেন সমাজের কাজ করছেন।

 ১৭ সেপ্টেম্বর ২০২২, শনিবার রাজধানীর ধানমন্ডিস্থ ঢাকা আহ্ছানিয়া  মিশনের প্রধান কার্যালয়ে ‘পরার্থপরতার আনন্দদর্শন : কাজী রফিকুল আলম ও ঢাকা আহ্ছানিয়া মিশন’ শীর্ষক গ্রন্থের প্রকাশনা অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন। 
আলোচক হিসেবে উপস্থিত ছিলেন আহ্ছানউল্লা বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ^বিদ্যালয়ের উপাচার্য প্রফেসর ড. মুহাম্মদ ফাজলী ইলাহী এবং বিশিষ্ট অর্থনীতিবিদ ও সাবেক তত্ত্বাবধায়ক সরকারের উপদেষ্টা ড. হোসেন জিল্লুর রহমান।
 সভায় সভাপতিত্ব করেন খুলনা বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রতিষ্ঠাতা উপাচার্য প্রফেসর ড. গোলাম রহমান। মঞ্চে আরও উপস্থিত ছিলেন ঢাকা আহ্ছানিয়া মিশনের সভাপতি কাজী রফিকুল আলম। গ্রন্থটির প্রণেতা বিশিষ্ট সমাজতাত্ত্বিক ও গবেষক খন্দকার সাখাওয়াত আলী বলেন, বইটিতে তিনটি চরিত্র আছে। 

খানবাহাদুর আহ্ধসঢ়;ছানউল্লা, কাজী রফিকুল আলম ও ঢাকা আহ্ছানিয়া মিশন। ৭টি অধ্যায়ে বইটি সাজানো হয়েছে। ড. হোসেন জিল্লুর রহমান বলেন, আমাদের জ্ঞান ভান্ডারে এই বইটি একটি অমূল্য সংযোজন। বিশ^ বদলেছে তাই এনজিও শব্দের পূনর্মূল্যায়ন প্রয়োজন।

উল্লেখ্য, ঢাকা আহ্ছানিয়া মিশনের প্রতিষ্ঠাতা হযরত খানবাহাদুর আহ্ছানউল্লা (র.) এবং মিশনের বর্তমান সভাপতির নিরলস প্রচেষ্টায় মিশনের সূচনালগ্ন থেকে আজ পর্যন্ত পর্যায়ক্রমিক উম্মেষ, বিকাশ ও অর্জনসমূহের প্রাসঙ্গিক বর্ণনা ও বিশ্লেষণের ভিত্তিতে রচিত হয়েছেÑ ‘পরার্থপরতার আনন্দদর্শন : কাজী রফিকুল আলম ও ঢাকা আহ্ধসঢ়;ছানিয়া মিশন’ শীর্ষক গুরুত্বপূর্ণ একটি গ্রন্থ। অনুষ্ঠান শেষে ধন্যবাদ জ্ঞাপন করেন ঢাকা আহ্ছানিয়া মিশনের সাধারণ সম্পাদক ইঞ্জিনিয়ার এ.এফ.এম গোলাম শরফুদ্দিন। এছাড়াও অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন বিভিন্ন সরকারি ও বেসরকারি প্রতিষ্ঠানের আগত প্রতিনিধিবৃন্দ ও বিভিন্ন শ্রেণিপেশার মানুষ।
 

মন্তব্য করুন হিসাবে:

মন্তব্য করুন (0)