আন্তর্জাতিক গণমাধ্যমেও প্রশংসা কুড়িয়েছে শিশির

tasnuba anan shishir

মানবাধিকারকর্মী, অভিনেত্রী ও নৃত্যশিল্পী তাসনুভা আনান শিশির দেশের প্রথম ট্রান্সজেন্ডার নারী, যিনি টেলিভিশনের সংবাদ পাঠিকা হিসেবে আত্মপ্রকাশ করেছেন।

স্বাধীনতার এই মার্চ মাস ও সুবর্ণজয়ন্তীর বছরে বৈশাখী টেলিভিশনের ব্যতিক্রমী উদ্যোগে টেলিভিশনে বিশ্ব নারী দিবসে গত সোমবার (৮ মার্চ) প্রথমবারের মতো সংবাদ পাঠ করেন তাসনুভা আনান।

তাসনুভা আনান সংবাদপাঠ শুরুর আগেই আলোচিত হয়েছেন দেশের গণমাধ্যমে। এবার তার এমন কৃতিত্ব বেশ প্রশংসা কুড়িয়েছে আন্তর্জাতিক গণমাধ্যমেও ।

বিশ্ব নারী দিবসে সংবাদ পাঠের ২৪ ঘণ্টার মধেই শিশিরকে নিয়ে প্রতিবেদন প্রকাশ করেছে বিবিসি, গার্ডিয়ান, ইন্ডিপেন্ডেন্ট, আল জাজিরা, ইন্ডিয়ান এক্সপ্রেস, ডন, ডেইলি মেইলের মতো জনপ্রিয় আন্তর্জাতিক সংবাদমাধ্যমগুলো।

বিবিসি তাদের প্রতিবেদনের শিরোনাম করেছে ‘বাংলাদেশ’স ফার্স্ট ট্রান্সজেন্ডার নিউজ রিডার মেকস ডেব্যু’।

দ্য গার্ডিয়ান-এর প্রতিবেদনের শিরোনাম ‘বাংলাদেশ’স ফার্স্ট ট্রান্সজেন্ডার নিউজ রিডার টেকস টু দ্য এয়ারওয়েভ।

দ্য ইন্ডিপেন্ডেন্ট ‘বাংলাদেশ’স ফার্স্ট ট্রান্সজেন্ডার নিউজ অ্যাংকর প্রেইজড ফর পারফেক্ট ডেব্যু’।

ডেইলি মেইল-এর শিরোনাম ছিল ‘মোমেন্ট বাংলাদেশ’স ফার্স্ট ট্রান্সজেন্ডার নিউজরিডার ব্রেকস ডাউন আফটার ফিনিশিং হার ফার্স্ট বুলেটিন’।

পাকিস্তানের প্রভাবশালী গণমাধ্যম ডন বলেছে, সংবাদ পাঠক হিসেবে তাসনুভা শিশিরের অভিষেক ছিল বিশ্বমানের।

রয়টার্স শিরোনাম করেছে, অ্যাংকরওম্যান: বাংলাদেশ’স ফার্স্ট ট্রান্সজেন্ডার নিউজরিডার হোপস টু ফস্টার অ্যাকসেপ্টেন্স।

বৈশাখী টিভির উপ-ব্যবস্থাপনা পরিচালক ও প্রধান সম্পাদক টিপু আলম বলেন, ‘স্বাধীনতার মাস মার্চে নারী দিবস উদযাপনের প্রাক্কালে আমাদের চ্যানেলের সংবাদে এবং নাটকে দুজন ট্রান্সজেন্ডার নারীকে যুক্ত করেছি।

আরও পড়ুনঃ নারী দিবসে দ্বিতীয় সন্তানের ছবি শেয়ার করলেন কারিনা

দেশের মানুষ এই প্রথম কোনো পেশাদার সংবাদ বুলেটিনে খবর পাঠ করতে দেখেছেন একজন ট্রান্সজেন্ডার নারীকে, যা স্বাধীনতার ৫০ বছরে দেশে আগে কখনো ঘটেনি। তিনি তাসনুভা আনান শিশির।’

তাসনুভা আনান বলেন, ‘স্বাধীনতার ৫০ বছরে বাংলাদেশের জেন্ডার ডিসক্রিমিনেশন বা চিরাচরিত প্রথা ভাঙতে পারছি এটা আমার জন্য একটা বড় প্রাপ্তি। আমি বিশ্বাস করি, চাইলে যে কেউ নিজের যোগ্যতাবলে কাক্সিক্ষত লক্ষ্যে পৌঁছে যেতে পারেন। বৈশাখী টেলিভিশনের এই অনন্য উদ্যোগে কৃতজ্ঞতা জানাচ্ছি।’