অচেতন করে মাদ্রাসাছাত্রীকে ধর্ষণ করলো চিকিৎসক

The doctor raped the madrasa student unconscious

খুলনার বটিয়াঘাটাতে ঘুমের ওষুধ খাইয়ে অচেতন করে ১২ বছরের এক মাদ্রাসাছাত্রীকে ধর্ষণ করেছে সঞ্জয় শীল (৫০) নামের এক এক হোমিওপ্যাথিক চিকিৎসক।

শনিবার (৩১ অক্টোবর) বিকেলে উপজেলার সুখদাড়া এলাকায় ওই ছাত্রীর নিজ বাড়িতে এ ঘটনা ঘটে। এ ঘটনায় ওই মাদ্রাসাছাত্রীর মা নিজে বাদী হয়ে রবিবার (১ নভেম্বর) থানায় একটি ধর্ষণ মামলা (নম্বর-১) করেছেন।

ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে সোমবার (২ নভেম্বর) সকালে বটিয়াঘাটা থানার ওসি রবিউল ইসলাম বলেন, অভিযুক্ত হোমিওপ্যাথিক চিকিৎসক সঞ্জয় শীল পলাতক রয়েছে। তাকে আটকের অভিযান চলছে।

মামলার বিবরণে বলা হয়েছে, উপজেলার গঙ্গারামপুর এলাকার মৃত. বিনোদ শীলের ছেলে হোমিওচিকিৎসক সঞ্জয় শীলের কাছে মাঝেমধ্যে ওই ছাত্রী ও তার মা চিকিৎসা নিতে যেতেন। চিকিৎসকও মাঝে-মধ্যে চিকিৎসা দিতে ওই ছাত্রীদের বাড়িতে আসতেন।

শনিবার ছাত্রীর বাড়িতে ঢুকে তার মাকে ডাকাডাকি করে না পেয়ে ছাত্রী সাড়া দিলে চিকিৎসক ঘরে প্রবেশ করে তার শারীরিক খোঁজখবর নিয়ে ঘুমের ওষুধ খাওয়ায়ে দেন।

আরও পড়ুনঃ মুখ বেঁধে প্রতিবেশী চাচিকে ধর্ষণ

একপর্যায়ে ছাত্রী অচেতন হয়ে পড়লে চিকিৎসক তাকে ধর্ষণ করে। পরবর্তীতে ছাত্রীর জ্ঞান ফিরলে তার চিৎকারে পথচারীরা এগিয়ে এলে চিকিৎসক দৌঁড়ে পালিয়ে যান।