মানুষ হত্যার দক্ষতার উপহার কিশোরী ‘নারী’!

মানুষ হত্যা করার দক্ষতা দেখাতে পারলে তারই উপহার হিসেবে মিলত ‘নারী’৷ আইএস জঙ্গিদের হাতে ‘পুরস্কার’ হিসাবে তুলে দেওয়া হত উত্তর ইরানের সিনজার থেকে অপহৃত ওয়াজিদি মেয়েদেরকে।

সম্প্রতি ত্রাস হয়ে ওঠা আইএস জঙ্গিদের ডেরা থেকে মুক্তি পায় প্রায় ২০০ ওয়াজিদি নারী৷ তারাই শোনান তাদের ওপর ঘটে যাওয়া সেই সব অত্যাচারের বিবরণ, যা শুনে স্তব্ধ গোটা বিশ্ব৷

তারা জানান, জঙ্গি ডেরায় প্রকাশ্যেই চলত গণধর্ষণ৷ আই জঙ্গিদের জন্য রান্না করা, তাদের সেবা করার পাশাপাশি ওয়াজিদি কিশোরী, তরুণীদের যখন-তখন মেটাতে হত জঙ্গিদের যৌন চাহিদা৷ অধিকাংশ সময়ই তাদের গণধর্ষণ করা হত৷ এক হাত থেকে অন্য হাতেও বিক্রি করা হত তাদের৷ চলত নির্মম মানসিক ও শারীরিক অত্যচার৷

উল্লেখ্য, গত কয়েক মাসে আইএস জঙ্গিরা উত্তর ইরাকের সিনাজপুর থেকে বিভিন্ন বয়েসর শতাধিক মেয়েকে অপহরণ করে নিয়ে যায়৷ রেহাই পায়নি শিশুরাও৷ গত আট মাস অমানবিক নির্যাতনের পর ২০০ জনকে ছেড়ে দেয় আইএস জঙ্গিরা৷

নামাজের সময়সুচী

ফজর ভোর 00:00 মিনিট
যোহর বেলা 00:00 মিনিট
আছর বিকেল 00:00 মিনিট
মাগরীব সন্ধ্যা 00:00 মিনিট
এশা রাত 00:00 মিনিট
সেহরী ভোর 0:00
ইফতার সন্ধ্যা 0.00

আর্কাইভ

নির্বাচিত সংবাদ