শরীরের তিলের অবস্থানে পিছিয়ে পড়ছেন না তো?

প্রতিটা দিন নিজেকে আরও ভাল রাখার চেষ্টা, সেই সঙ্গে পরিবার পরিজনদের পাশে দাঁড়ানো, আরও অনেক ভালভাবে ভবিষ্যৎ তৈরির স্বপ্ন- এগুলো যে কোনও মানুষেরই প্রতিদিনকার ভাবনা।

তাই কেউ কেউ আছেন, যারা নিজ চেষ্টার জোরে তরতর করে সাফল্যের সিঁড়ি বেয়ে ওপরে ওঠেন।

আর কেউ আছেন, হাজার চেষ্টাতেও কিছুতেই সফল হতে পারেন না। এর কারণ কি কিছুই নেই? অবশ্যই আছে। তা হল, গ্রহ এবং আমাদের শরীরে নানা চিহ্নের অবস্থান।

আজ সেরকমই একটি বিষয় নিয়ে আলোচনা হবে। শরীরের কোথায় কোথায় তিলের অবস্থানের কারণে আপনি পিছিয়ে পড়ছেন সাফল্যের ঠিকানা থেকে, চলুন জেনে নেওয়া যাক-

গালের বাম দিকে তিল:
আপনার গালের বাম দিকে যদি তিল থাকে, তাহলে আপনার অর্থ ভাগ্য খুবই ভাল। জীবনের প্রতিটি সময়েই অর্থ উপার্জনের উপায় আপনার হাতের মুঠোয় থাকবে। যদিও একটি বড় বাধা অবশ্যই আছে। তা হল, অনেক উপার্জন করা সত্ত্বেও আপনি সঞ্চয় করতে পারবেন না।

ঠোঁটের নিচে তিল:
শরীরের এই অংশে তিল থাকলে সেই ব্যক্তি অর্থকষ্টে ভুগতে পারেন।

যে কোনও কারণেই হোক, টাকা জমানো খুবই চ্যালেঞ্জের বিষয় হয়ে উঠবে।
বাম হাতের তালুতে তিল:
বাম হাতের তালুর বিপরীত দিকে যদি তিল থাকে, তাহলে অর্থভাগ্য বেশ খারাপ হয়। এরা বয়ঃসন্ধিকালে টাকা জমাতে পারে না। তবে এর একটি ভাল দিকও আছে। তা হল, এরা কোনও দিন অর্থের অভাব বোধ করেন না।

বাম পায়ে তিল:
পায়ের এই জায়গায় তিল থাকাটা কিন্তু বেশ বিপদের। কারণ যাদের বাম পায়ে তিল থাকে, তাদের কারণে-অকারণে প্রচুর পরিমাণে টাকা খরচ হয়ে যায়। এমনকি এদের অর্থ সঞ্চয়ের হওয়ার সম্ভাবনাও বেশ কম থাকে। এখানেই শেষ নয়, এরা জীবনের একটা সময় অর্থের অভাবে খুব কষ্টও পেতে পারেন।

তর্জনীতে তিল:
যদি তর্জনীতে তিল থাকে তাহলে নিদারুন অর্থকষ্টে ভুগতে হতে হয়। এমনকি জীবনের কোনও একটি পর্যায়ে অভুক্ত থাকার মতো পরিস্থিতিও তৈরি হতে পারে।

বাম দিকের ভুরুতে তিল:
যদি কোনও ব্যক্তির বাম দিকের ভুরুর নিচে বা ওপরে তিল থাকে, তাহলে সেই ব্যক্তি যৌনতার ব্যাপারে অতি উৎসুক হয়ে থাকেন। এমনকি জীবনের কোনও একটি সময় অতিরিক্ত লোভ এদের দেউলিয়া হয়ে যাওয়ার মতো আবস্থাও হতে পারে।

বাম দিকের বগলে তিল:
বামদিকের বগলে তিল যাদের আছে, তাদের স্বাস্থ্যের ব্যাপারে যত্নশীল হওয়া দরকার। কারণ নানা রোগে আক্রান্ত হয়ে পরার কারণে নানা সময় এদের টাকা বেড়িয়ে যাওয়ার আশঙ্কা রয়েছে।

নামাজের সময়সুচী

ফজর ভোর 00:00 মিনিট
যোহর বেলা 00:00 মিনিট
আছর বিকেল 00:00 মিনিট
মাগরীব সন্ধ্যা 00:00 মিনিট
এশা রাত 00:00 মিনিট
সেহরী ভোর 0:00
ইফতার সন্ধ্যা 0.00

আর্কাইভ

নির্বাচিত সংবাদ