স্টোকের ঝুঁকি  হ্রাস করে কান্না !

কেউ কাঁদলে আমরা তাকে সান্তনা দিয়ে কান্না থামানোর চেষ্টা করে থাকি। কিন্তু, গবেষকরা বলছেন, 'কাঁদতে দিন'। এটা নিজের অজান্তেই তার শরীরের অনেক বড় উপকার করবে। হাসি হার্ট সুস্থ রাখে। তবে মুদ্রার অপর পিঠেও ভালো কিছু থাকতে পারে, সেটাই বের হলো নতুন গবেষণায়। 

এতে জানা গেছে, কান্না করাও স্বাস্থ্যের জন্য ভাল! সাধারণত কান্না তিন প্রকার: রিফ্ল্যাক্সিভ (আত্মবাচক), কনটিনিউড( ধারাবাহিক কান্না) এবং ইমোশনাল( আবেগপ্রবণ কান্না)। মজার বিষয় মানুষ এই তিন ধরণের মধ্যে শুধু ইমশোনাল কান্নাই করে থাকেন অধিকাংশ ক্ষেত্রে। 

Neuroscientist and tear researcher Dr. William H. Frey II, PhD, director of the Alzheimer’s Research Center at Regions Hospital in St. Paul, Minnesota গবেষণা করে দেখেছেন, ৮৫% নারী এবং ৭৩% পুরুষের হতাশা এবং রাগ কান্নার পর কমে যায়। এক বছরে গড়ে একজন নারী ৪৭ বার এবং একজন পুরুষ ৭ বার কেঁদে থাকেন। গড়ে ৬ মিনিট কান্না স্থায়ী হয়। সাধারণত ৭ টা থেকে রাত ১০ টার মাঝে কান্না বেশি হয়ে থাকে। আর এ কান্নার কিছু স্বাস্থ্যগত সুফল খুঁজে বের করেছেন গবেষকরা।

১. স্ট্রেস দূর করতে সাহায্য করে
William H. Frey II, Ph.D., a biochemist and director of the Psychiatry Research Laboratories at the St. Paul-Ramsey Medical Centre, Professor and Dir ector Alzheimer’s Research Center Regions Hospital Foundation, Minnesota মনে করেন, “কান্না শরীরে স্ট্রেস তৈরি করার রাসায়নিক পদার্থ দূর করে দেয়। অতিরিক্ত স্ট্রেস হার্ট অ্যাটাক এবং স্টোকের ঝুঁকি বৃদ্ধি করে, আর কান্না স্টেস দূর করে হৃদরোগের ঝুঁকি হ্রাস করে থাকে।

২. চোখ পরিষ্কার করে দেয়
পেঁয়াজ কাটার সময় কি আপনার চোখ দিয়ে পানি পড়ে? খুব বিরক্তকর এই কাজটি মূলত আপনার চোখ পরিষ্কার করে থাকে। চোখের পানিতে লাইসোজাইম আছে যা অ্যান্টি ব্যাকটেরিয়াল, অ্যান্টিভাইরাল এবং গ্লুকোজ দিয়ে তৈরি। এটা চোখের ভিতর এবং কণিকা সুস্থ রাখতে সাহায্য করে।

৩. রক্তচাপ হ্রাস করতে
কান্না রক্তচাপ, পালস রেট কমিয়ে শরীর সুস্থ রাখতে সাহায্য করে থাকে। তাই কষ্ট বা মন খারাপের সময় কিছুটা কেঁদে নিলে এটি আপনার রক্তচাপকে নিয়ন্ত্রণে রাখতে সাহায্য করবে।

৪. ম্যাঙ্গানিজ কমিয়ে দিয়ে থাকে
কান্না শরীরের ম্যাঙ্গানিজ পদার্থ কমিয়ে দিয়ে থাকে। এই পদার্থটি মুডকে প্রভাবিত করে থাকে। যার কারণে কান্নার পর আপনি একটি ঝরঝরে মুড পেয়ে থাকেন।

৫. আবেগের প্রকাশ
অন্যান্য স্তন্যপায়ী প্রাণী মানুষের মত কান্না করলেও শুধুমাত্র মানুষই ইমোশনাল কান্না করে থাকেন। মানুষ কান্নার মাধ্যমে তার আবেগের প্রকাশ করে থাকেন। 
তার ভিতরে খারাপ লাগা, দু:খ-কষ্ট কান্নার মাধ্যমে প্রকাশ পায়। যা তার মন হালকা করে মন ভাল করতে সাহায্য করে থাকে। 
মনের কষ্ট বা দু:খকে দূর করতে কান্না সবচেয়ে ভাল উপায়।

নামাজের সময়সুচী

ফজর ভোর 00:00 মিনিট
যোহর বেলা 00:00 মিনিট
আছর বিকেল 00:00 মিনিট
মাগরীব সন্ধ্যা 00:00 মিনিট
এশা রাত 00:00 মিনিট
সেহরী ভোর 0:00
ইফতার সন্ধ্যা 0.00

আর্কাইভ

নির্বাচিত সংবাদ